× প্রচ্ছদ জাতীয় সারাদেশ রাজনীতি বিশ্ব খেলা আজকের বিশেষ বাণিজ্য বিনোদন ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

আশুলিয়ায় শিক্ষার্থীর লাঠির আঘাতে নিহত প্রভাষক উৎপল কুমার সরকারের শেষকৃত্য সম্পন্ন

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি

২৮ জুন ২০২২, ১৮:১৮ পিএম । আপডেটঃ ২৮ জুন ২০২২, ১৮:১৯ পিএম

আশুলিয়ায় শিক্ষার্থীর লাঠির আঘাতে নিহত সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার প্রভাষক উৎপল কুমার সরকারের মরদেহের শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হয়েছে। সোমবার (২৭ জুন) রাত ৩টার দিকে নিহত শিক্ষকের গ্রামের বাড়ির পার্শ্ববর্তী লাহিড়ী মোহনপুর শ্মশানে তার শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়।

এর আগে গতকাল সোমবার (২৭ জুন) ঢাকার সাভার থেকে উল্লাপাড়া উপজেলার লাহিড়ী মোহনপুর ইউনিয়নের এলংজানী গ্রামের নিজ বাড়িতে তার মরদেহ আনা হয় রাত ১০টার দিকে।এদিকে উল্লাপাড়া উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়িনের এলংজানী গ্রামে তার বাড়িতে মরদেহ এসে পৌঁছালে সেখানে এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়। এ সময় উৎপলের মা বৃদ্ধ গীতা রানীসহ পরিবারের স্বজন ও প্রতিবেশীদের গগনবিদারি আর্তনাদ ও কান্নায় ভারী হয়ে ওঠে সেখানকার বাতাস।সন্তানের মরদেহ দেখে কাঁদতে কাঁদতে বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েন তার বৃদ্ধ মা। অকালে সন্তান হারানোর শোক যেন কোনোভাবেই সইতে পারছে না গীতা রানী।

ছেলের শোকে কাতর হয়ে কিছুক্ষণ পরুপর বলে উঠছেন, তোমরা আমার উৎপল রে আমার বুকে আইনা দাও। এইভাবে সে চইলা যাইতে পারে না।এ সময় উৎপলকে নৃশংসভাবে পিটিয়ে হত্যার সঙ্গে জড়িত শিক্ষার্থীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন উৎপলের স্বজন ও স্থানীয়রা।উৎপলের জ্যাঠাতো (খুড়তত) দাদা রঞ্জন কুমার সরকার বলেন, রাত ১০টার দিকে উৎপলের মরদেহ বাড়িতে এসে পৌঁছায়। রাত সাড়ে ১১টার দিকে তার মরদেহ লাহিড়ী মোহনপুর শ্মশানে নিয়ে রাত ৩টার দিকে শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হয়। এ সময় উৎপলের শোকে শ্মশান এলাকায় সব ধর্মের মানুষ ভিড় করে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়ে।

উৎপলের ছোট ভাইয়ের স্ত্রী মলি রানী সরকার জানান, তার ভাশুরের মর্মান্তিক হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের শাসন করায় যদি শিক্ষককে এভাবে করুণ মৃত্যুবরণ করতে হয়, তাহলে দেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো কিসের জন্য? আমরা এর সর্বোচ্চ বিচার দাবি করছি।মঙ্গলবার সকালে উৎপলের বাড়িতে ভিড় করে এলাকাবাসী। তারা জানান, উৎপলের পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। নির্বাক হয়ে পড়েছেন উৎপলের মা। পরিবার ও এলাকাবাসীরও একই কথা, এভাবে মরতে পারেন না উৎপল! তাকে হারিয়ে যেন বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছে তার পরিবার। উৎপল নেই, পরিবারের সঙ্গে তারাও এটা বিশ্বাস করতে পারছেন না।মোহনপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বলেন, তার এই অকাল ও মর্মান্তিক মৃত্যু মেনে নেওয়া যায় না। তার পরিবারসহ এলাকাবাসী কেউই এটা মেনে নিতে পারছে না। তার পরিবারে গভীর শোক বিরাজ করছে। এটা কষ্টের। তার মা-ভাইয়েরা কষ্টে নির্বাক হয়ে পড়েছেন। আমরা এর সঠিক বিচার দাবি করছি।উৎপল উল্লাপাড়া উপজেলার এলংজানী গ্রামের মৃত অজিত সরকারের ছেলে।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর শেষ করেন উৎপল কুমার সরকার। আশুলিয়ার চিত্রশাইল এলাকার হাজী ইউনুস আলী স্কুল ও কলেজে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক হিসেবে ১০ বছর কর্মরত ছিলেন। উৎপল ওই প্রতিষ্ঠানের শৃঙ্খলা কমিটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছিলেন। এ দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে বিভিন্ন সময় উচ্ছৃঙ্খল শিক্ষার্থীদের মানসিকতা উন্নয়নে কাজ ও শাসন করতে হয়েছে তাকে।

উল্লেখ্য, গত শনিবার (২৫ জুন) হাজী ইউনুস আলী স্কুল ও কলেজ মাঠে ছাত্রীদের ফুটবল খেলা চলছিল। প্রভাষক উৎপল মাঠের এক পাশে দাঁড়িয়ে খেলা দেখছিলেন। এ সময় ওই প্রতিষ্ঠানের দশম শ্রেণির ছাত্র আশরাফুল ইসলাম জিতু ক্রিকেটের স্টাম্প নিয়ে এসে উৎপলকে বেধড়ক পেটাতে শুরু করে।পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে আইসিউতে রাখা হয়। মৃত্যুর সঙ্গে লড়ে সোমবার সকালে তিনি মারা যান।  


Sangbad Sarabela

সম্পাদক: আবদুল মজিদ

প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । sangbadsarabela26@gmail.com

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2022 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.