× প্রচ্ছদ জাতীয় সারাদেশ রাজনীতি বিশ্ব খেলা আজকের বিশেষ বাণিজ্য বিনোদন ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

বগুড়া শজিমক হাসপাতাল হার্টর ব্লক অপসারণ কার্যক্রম শুরু

০১ আগস্ট ২০২২, ১৩:৩৯ পিএম । আপডেটঃ ০১ আগস্ট ২০২২, ১৩:৪৩ পিএম

বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মডিকেল কলেজ হাসপাতালে (শজিমক) হার্টর ব্লক অপসারণ (এনজিও প্লাস্টি ও স্টটিং) কার্যক্রম রবিবার শুরু হয়েছে। ঢাকার জাতীয় হৃদরাগ ইন্সটিটিউটর পরিচালক প্রফসর মীর জামাল উদ্দিনর নতত্ব একদল চিকিৎসক শজিমক হাসপাতাল ৩জন রাগীর স্টটিং (রিং পরানা) ও ৮জন রাগীর এনজিওগ্রাম সফলভাব সম্পন করেছেন


আগামী ৩ মাসর মধ্য বগুড়ার এই হাসপাতালর চিকিৎসকগণ অত্যাধুনিক এই চিকিৎসায় সার্বিক সক্ষমতা অর্জন করবেন বল ঢাকার বিশষজ্ঞ চিকিৎসকগণ জানিয়েছেন। এত করে বগুড়াসহ উত্তরর ১২ জলার মানুষর হৃদরাগ চিকিৎসা জটিলতার নিরসন হত চলছে।

শজিমক হাসপাতাল সূত্র জানায়, ২০০৬ সাল বগুড়া শজিমক হাসপাতালর কার্ডিওলজি বিভাগ ক্যাথলাব এর  কার্যক্রম  শুরু হয়। ২০০৭ সাল এনজিওগ্রাম শুরু পরই তা বন্ধ হয় যায়। পরবর্তীসময় ২০১৬ সাল থক আবার এনজিওগ্রাম শুরু হলও সটির ধারাবাহিকতা ছিল না। এরই মধ্য এনজিওগ্রাম মশিনটি অকার্যকর হয় পড়। পুরনা মশিনর বহাল অব¯ার কারণ ২০১৯ সাল প্রায় ৪ কাটি টাকা ব্যয় নতুন সিমার্জু মশিন ¯াপন করা হয়।

কি এর কিছুদিন পরই করানার প্রাদুর্ভাব দখা দিল এনজিওগ্রাম কার্যক্রম গতিহীন হয় পড়। ২০২১ সালর মার্চ থক পুরাদম আবারও এনজিওগ্রাম শুরু হয়। তব এই হাসপাতাল রিং পরানার ব্যব¯া ছিলা না। রাগীরা এখান এনজিওগ্রাম করলও তাদর রিং পরানার জন্য ঢাকায় যত হতা। এ কারণ ওই বছরর ৪ ডিসম্বর হত এই হাসপাতাল স্বল্প খরচ রিং পরানা কার্যক্রম শুরু হয়।

আর এই কার্যক্রম সহযাগিতার হাত বাড়ায় ঢাকার জাতীয় হৃদরাগ ইন্সটিটিউট। এখানকার চিকিৎসক, টকিনিশিয়ান ও নার্সদর এই কার্যক্রম পারদর্শী কর তুলত প্রতিমাস একটি বিশষজ্ঞ দল বগুড়ায় এস এখানকার চিকিৎসক ও সহযাগিদর নিয় এই কার্যক্রম চালু করন।

শজিমক হাসপাতাল কার্ডিওলজি বিভাগর প্রধান ডাঃ শখ শহীদুল হক জানান, গত বছরর ডিসম্বরর পর থকই প্রতিমাস এখান রিং পরানা কার্যক্রম অব্যাহত রয়ছ। তারই ধারাবাহিকতায় রবিবার ঢাকার বিশষজ্ঞ দলর সহযাগিতায় ৩জন রাগীর স্টটিং ও ৮জন রাগীর এনজিওগ্রাম সফলভাব সম্পন করা হয়। ঢাকার বিশষজ্ঞ চিকিৎসক দল ছিলন ইউনাইটড হাসপাতালর ডাঃ কায়সার নাসরুল্লাহ খান, জাতীয় হৃদরাগ ইন্সটিটিউটর অধ্যাপক ডাঃ মহসীন আহমদ সাহল, ডাঃ আনিসুর রহমান, ডাঃ রতন ও ডাঃ রুমি।

শজিমকর অধ্যক্ষ  প্রফসর ডাঃ রজাউল আলম জুয়ল জানান, এক সময় দিনাজপুর হার্ট ফাউন্ডশন ও রংপুর মডিকল কলজ হাসপাতাল এনজিওগ্রাম হতা, কি সটাও অনকদিন বন্ধ রয়ছ। এই অঞ্চল শুধুমাত্র রাজশাহী মডিকল কলজ হাসপাতাল এটি চালু। একারণ এই অঞ্চলর গরীব ও সাধারণ মানুষক অনক টাকা ব্যয় ঢাকায় গিয় চিকিৎসা নিত হতা। এখন থক তাদর আর সই সমস্যা থাকবনা। বিশষ কর রংপুর বিভাগর জলাসহ বগুড়া, জয়পুরহাট, নওগাঁ ও সিরাজগঞ্জসহ ১২ জলার মানুষ এখান স্বল্প খরচ শজিমক হাসপাতাল এই চিকিৎসা নিত পারবন।

বিশষজ্ঞ চিকিৎসক দলর অন্যতম সদস্য ঢাকার জাতীয় হৃদরাগ ইন্সটিটিউটর অধ্যাপক ডাঃ মহসীন আহমদ সাহল জানান, এখন থক যহতু নিয়মিত এই হাসপাতাল এনজিওগ্রামসহ রিং পরানা কার্যক্রম চলব, সকারণ আগামী ৩ মাসর মধ্য তাদর আর এখান এস কান সহযাগিতা করার  প্রয়াজন হব না। এর মধ্যই বগুড়া শজিমক হাসপাতালর কার্ডিওলজি বিভাগ সব সক্ষমতা অর্জন করব। এত কর এই অঞ্চলর হৃদরাগ আক্রাÍদর চিকিৎসা সহজলভ্য হব বলও উল্লখ করন তিনি।

উল্লখ্য, বগুড়া শজিমক হাসপাতাল প্রতিদিন গড় ৪০জন হৃদরাগী ভর্তি হন। এখান মাট বড সংখ্যা ৪৪টি হলও গড় এখান ১৫০ জন রাগী ভর্তি থাকন। বড না পয় এখান মঝত রাগীক অব¯ান করত হয়। হার্ট ব্লকর চিকিৎসার জন্য য ওষুধপত্র প্রয়াজন তার অনকটাই হাসপাতাল কর্তপক্ষ দয় বল অনক রাগীই প্রাইভট ক্লিনিক ভর্তি হন না।



Sangbad Sarabela

সম্পাদক: আবদুল মজিদ

প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । sangbadsarabela26@gmail.com

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2022 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.