× প্রচ্ছদ জাতীয় সারাদেশ রাজনীতি বিশ্ব খেলা আজকের বিশেষ বাণিজ্য বিনোদন ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

ব্যবসায়ীর টাকা মেরে দিয়ে পলাতক রৌশন আলী অবশেষে কারাগারে

চট্টগ্রাম ব্যুরো

০২ আগস্ট ২০২২, ১৫:৪৬ পিএম । আপডেটঃ ০২ আগস্ট ২০২২, ১৫:৪৯ পিএম

কয়েক ব্যবসায়ীর সাথে প্রতারণা করে টাকা মেরে দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে পলাতক থাকা রৌশন আলী অবশেষে আদালতের আদেশে কারাবরণ করেছেন। প্রতারণার শিকার চকবাজার থানাধীন ডিসিরোড শিশু কবরস্থান এলাকার বাসিন্দা মফিজুর রহমানের দায়েরকৃত সি.আর. (১১/২০২২) মামলায় গত ২৭ জুলাই ২০২২ইং তারিখে হাজিরা দিতে গেলে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্চারামপুর থানার,ফতেহপুর গ্রামের বাসিন্দা মৃত সাহেব আলীর পুত্র বর্তমানে ঢাকার উত্তরায় বসবাসকারী নুর আলম ব্রাদার্স নামক প্রতিষ্ঠানের স্বত্ত্বাধিকারী মোঃ রৌশন আলী মামলার বাদী মফিজুর রহমানের ১ কোটি ৭৩ লাখ টাকা আত্মসাৎ করে দীর্ঘদিন ধরে পলাতক ছিলেন। ওইদিন আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থণা করলে আদালত তার আবেদন খারিজ করে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। ইতোমধ্যে ভুক্তভোগী মফিজুর রহমান পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দিয়ে প্রতারক রৌশন আলীর সাথে কোনোরূপ ব্যবসায়ীক লেনদেন না করার জন্য সবাইকে সতর্ক করেছেন।

মামলার বাদী ভুক্তভোগী মফিজুর রহমান জানান, “কুমিল্লা ইপিজেডের আর.এন.স্পিনিং মিলটি আগুনে পুড়ে গেলে মিলের মেশিনারিজ, লোহা, কাস্টারডসহ যাবতীয় সামগ্রী বিক্রয়ের টেন্ডার হয়। টেন্ডারে রৌশন আলীর মালিকানাধীন নুর আলম এন্ড ব্রাদার্স মালামাল ক্রয়ের কার্যাদেশ পান। রৌশন আলী উক্ত মালামাল বিক্রির কথা জানালে আমি কাগজপত্র দেখে উত্তরায় তার অফিসে বসে ১২ কোটি টাকায় ক্রয়ের জন্য ২০২০ সালের ৩০ জুলাই চুক্তিবদ্ধ হই। চুক্তি মোতাবেক আমি তাকে তিন/চার কিস্তিতে ১ কোটি ৭৩ লক্ষ টাকা পরিশোধ করি। বাকী টাকা ডেলিভারি চলাকালীন সময়ে ধাপে ধাপে পরিশোধের সিন্ধান্ত হয়।

কিন্তু টাকা পাওয়ার পর থেকে নানা টালবাহানা শুরু করে রৌশন আলী একসময় আমার ফোন ধরা বন্ধ এবং সকল প্রকার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়। অথচ আমার সাথে ৩০টাকা ধরে চুক্তিবদ্ধ হওয়া মালামাল সে অন্যজনের নিকট ৫০টাকা দরে বেশি দামে বিক্রয় করে দেয়। গত তিন বছর ধরে থাকে খোঁজে না পেয়ে অবশেষে আইনের দ্বারস্থ হতে বাধ্য হয়েছি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে দায়েরকৃত সি.আর মামলা (১১/২০২২) এর ১নং সাক্ষী আবু তৈয়ব বলেন, আমার উপস্থিতিতে রৌশন আলীর সাথে মফিজুর রহমানের চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে। টাকা পরিশোধ, মালের দরদামসহ যাবতীয় সবকিছুতে উভয়েই আমাকে সাক্ষী মেনেছিলেন। কিন্তু রৌশন আলী এভাবে প্রতারণা করবেন সেটা আমি কল্পনাও করতে পারিনি। আমি চাই বিষয়টার একটা শান্তিপূর্ণ সমাধান অন্যথায় এ প্রতারকের যথাযথ শাস্তি নিশ্চিত হোক।

Sangbad Sarabela

সম্পাদক: আবদুল মজিদ

প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । sangbadsarabela26@gmail.com

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2022 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.