× প্রচ্ছদ জাতীয় সারাদেশ রাজনীতি বিশ্ব খেলা আজকের বিশেষ বাণিজ্য বিনোদন ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

মুজিবনগরে চাষ হচ্ছে আরবের খেজুর

মেহেরপুর প্রতিনিধি

০৪ আগস্ট ২০২২, ১৬:০৩ পিএম । আপডেটঃ ০৪ আগস্ট ২০২২, ২১:০৪ পিএম

মুজিবনগর কমপ্লেক্সের পূর্বপাশে প্রায় শতাধিক গাছে থোকায় থোকায় ঝুলছে মধ্যপ্রাচ্যের খেজুর। স্বাদে গন্ধে ও পুষ্টিতে কোন অংশেই কম না মুজিবনগরে উৎপাদিত আরবের এই খেজুর। আমদানিনির্ভর মধ্যপ্রাচ্যের ফল খির খেজুর। বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের উদ্যোগে দেশেই এ ফল উৎপাদনের দ্বার খুলতে যাচ্ছে। ১০টি জাত নিয়ে মেহেরপুরের মুজিবনগরে পরীক্ষামূলকভাবে শুরু হয়েছে চাষ। কয়েকটি জাত বাছাই করে কৃষকদের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা চলছে বলে জানায় কৃষি বিভাগ।

'মুজিবনগর সমন্বিত কৃষি উন্নয়ন প্রকল্পের’ আওতায় বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট কুষ্টিয়া কেন্দ্র মুজিবনগর মুক্তিযুদ্ধ কমপ্লেক্স চত্বরের পূর্বপাশে ২০১৪ সাল থেকে খেজুরের চাষ শুরু করা হয়। কাতার, ওমান, দুবাই, ইরান, সৌদি, সুদান থেকে আজোয়া, আম্বার, লুলু, খালাস, ডেগলেটনুর, কালমি, মাকতুম, সুক্কারি, বাহারি ও মরিয়ামসহ ১০টি জাতের বীজ নিয়ে আসেন মধ্যপ্রাচ্য থেকে বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট কুষ্টিয়া। ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে বীজ বপন করা হয় কুষ্টিয়া সেচ প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। সেই বীজের ২ হাজার চারা রোপণ করা হয় মুজিবনগর কমপ্লেক্সে। বপনের আড়াই বছরের মধ্যে ৪টি গাছে ফলও আসে। এরপর থেকে ২০-২৫ টি গাছে ফলন আসা শুরু করে। চলতি মৌসুমে সর্বোচ্চ দেড় শতাধিক গাছে খেজুর ধরেছে। 

বাগান পরিচর্যাকারী মনিরুল বলেন, খেজুর গাছের পরাগায়ন পোকামাকড়, মৌমাছি কিংবা বাতাসের মাধ্যমে খুব কম হয়। তাই হাত দিয়ে অথবা মেকানিক্যাল পদ্ধতিতে পরাগায়ন করতে হয়। বাগানে ১০০টি স্ত্রী গাছের সঙ্গে মাত্র একটি পুরুষ গাছ থাকলেই পরাগায়নের জন্য যথেষ্ট। পরাগায়ন করতে হলে স্ত্রী গাছের ফুল চুরমি ফেটে বাইরে আসার পর পুরুষ গাছের পরাগরেণু পাউডার নিয়ে স্ত্রী গাছের পুষ্পমঞ্জুরিতে লাগিয়ে দিয়ে চুরমির অগ্রভাগ রশি দিয়ে বেঁধে দিতে হয়। ২-৩ দিন পর পর পুনরায় পরাগায়ন করলে ভালো ফল হয়। 

এদিকে আরবের খেজুর মুজিবনগরে মাটিতে সফলভাবে চাষ করায় খেজুর চাষের অপার সম্ভাবনা দেখছে এলাকার কৃষকরা। খেজুর চাষ করে কৃষিখাতের নতুন দিগন্ত উন্মোচোনের পাশাপাশি অর্থনৈতিকভাবেও লাভজনক হবে বলে আশা কৃষি বিভাগের। 

বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট কুষ্টিয়া জোনের আওতায় মুজিবনগর মুক্তিযুদ্ধ কমপ্লেক্স চত্বরে খেজুর বাগানের তত্ত্বাবধায়ক মহিবুল ইসলাম বলেন, খেজুরের চারা রোপণ করতে হলে ৩ ফুট গভীর ও ৩ ফুট লম্বা এবং ৩ ফুট আড়াআড়ি গর্ত বানাতে হবে। ওপরের মাটি নিচে এবং নিচের মাটি ওপরে দিতে হবে। গর্তের মাটি ১-২ দিন রোদে শুকিয়ে নিলে ভালো হয়। পোকামাকড়ের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য মাটির সঙ্গে গুঁড়া বিষ মেশাতে হয়। প্রতিটি গাছের গোড়ায় ৮ থেকে ১০ কেজি গোবর সার মেশাতে হবে।

চারা রোপণের ১০ থেকে ১৫ দিন পর মিশ্র সার গাছের কমপক্ষে ২ থেকে ৩ ফুট দূরে মাটিতে দিতে হয়। পানি স্প্রে করতে হবে। চারা রোপণের পর চারার গোড়া যেন শুকিয়ে না যায় আবার অতিরিক্ত পানিতে যেন কাদা না জমে সে দিকে খেয়াল রাখতে হবে। একটি গাছ থেকে আরেকটি গাছের দূরত্ব হবে ১৫ থেকে ২০ ফুট। দিনে কমপক্ষে ৫ থেকে ৮ ঘণ্টা যাতে রোদ থাকে এমন জায়গা নির্বাচন করতে হবে। তাতে গাছের বৃদ্ধি ও রোগ-বালাই কম হবে। একরপ্রতি ১০০ থেকে ১৫০টির বেশি গাছ রোপণ করা যাবে না।

মেহেরপুর জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত উপ-পরিচালক এ কে এম কামরুজ্জামান বলেন, মেহেরপুরের মাটি অত্যন্ত উর্বর। এই উর্বরতাকে কাজে লাগিয়ে ২০১৪ সাল থেকে ব্রি রাইস ফার্মিং সিস্টেমের আওতায় মুজিবনগর প্রকল্প নামে এই গবেষণা শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে বেশ ভালো ফলও পাওয়া গেছে। খেজুর ও চারা উৎপাদন ছাড়াও এর সঙ্গে পরীক্ষা করা হচ্ছে অন্যান্য ফসলের এগ্রোফরেস্ট্রি সিস্টেম।



Sangbad Sarabela

সম্পাদক: আবদুল মজিদ

প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । sangbadsarabela26@gmail.com, বিজ্ঞাপন: 01894-944204

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2022 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.