× প্রচ্ছদ বাংলাদেশ বিশ্ব রাজনীতি খেলা বিনোদন বাণিজ্য লাইফ স্টাইল ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

উৎকন্ঠা নিয়ে নিদ্রাহীন রাত কাটিয়ে গৃহে ফিরছে উপকূলের মানুষ

পটুয়াখালী প্রতিনিধি

২৫ অক্টোবর ২০২২, ১৬:৪৪ পিএম

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় ঘূর্ণিঝড় সিত্রাং আতঙ্কে নিদ্রহীন রাত কাটিয়ে আশ্রয়ন কেন্দ্র থেকে নিজ আবাসস্থলে ফিরছে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় বসবাসরত সাধারণ মানুষ।

এছাড়া পায়রা সমুদ্র বন্দরে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত নামিয়ে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবওয়া বিভাগ। সিত্রাংএর প্রভাবে উপকূলীয় এলাকায় প্রবল বর্ষনের ফলে পুকুর, মাছের ঘের ও ক্ষেতের  ফলস পানির নিচে ডুবে রয়েছে তাছাড়া তেমন কোন ক্ষয়ক্ষতির ঘটনা ঘটেনি বলে জানা গেছে। 

এদিকে মঙ্গলবার সকাল থেকে উপজেলার ১৭৫টি আশ্রয়ন কেন্দ্রের মধ্যে শতাধিক আশ্রায়ন কেন্দ্রে আশ্রয় নেয়া ১৮ হাজার ৩’শ ৬৬ জন মানুষ তাদের নিজ গৃহে ফিরে গেছেন। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা  সংকর চন্দ্র বৈদ্য।

তিনি জানান, সোমবার বিকাল থেকে গৃহপালিত পশু,পাখি ও মালামাল নিয়ে সাইক্লোন শেল্টারে আশ্রয় নেয়া মানুষেরা ভোরের দিকেই তাদের নিজ গৃহে ফিরে গেছেন। তবে লালুয়া ইউপি চেয়ারম্যান শওকত হোসেন তপন বিশ্বাস জানান, তার ইউনিয়নে অন্তত ১৮টি আশ্রয়ন কেন্দ্র থেকে প্রায় ২ হাজার মানুষ নিজ বাড়িতে ফিরেছেন। কিছু যায়গায় এখনো মানুষ রয়েছেন। তারা দুপুরের মধ্যেই বাড়িতে ফিরবেন। 

মহিপুর  থানার ওসি মো. খোন্দকার মোঃআবুল খায়ের জানান, ঘূর্ণিঝড় সিত্রাং এর প্রভাবে উপকূলীয় এলাকার মহিপুর -কুয়াকাটার কোথাও কোন দুর্ঘটনার খবর আমাদের কাছে আসেনি। 

পটুয়াখালী ৪ আসনের সাংসদ মহিব্বুর রহমান জানান, ঘূর্ণিঝড় সিত্রাং মোকাবেলায় মানুষের জান মালের নিরাপত্তার লক্ষেসকল পর্যায়ে নির্দেশনা দেয়া হয়েছিল। এবং আমি নিজেও ঝড়ো বৃষ্টির মধ্যে শুকনা খাবার নিয়ে বিভিন্ন আশ্রয়ন কেন্দ্রে গিয়েছি। আল্লহর রহমতে আমার নির্বাচনি এলাকায় তেমন কোন ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি। এ ধরনের দুর্যোগ মোকাবেলায় মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর নির্দেশে আমরা সব সময়ই সচেষ্ট থাকব।

Sangbad Sarabela

সম্পাদক: আবদুল মজিদ

প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । sangbadsarabela26@gmail.com, বিজ্ঞাপন: 01894-944204

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2022 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.