× প্রচ্ছদ বাংলাদেশ বিশ্ব রাজনীতি খেলা বিনোদন বাণিজ্য লাইফ স্টাইল ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

রাঙামাটিতে দুই দিনব্যাপী কঠিন চীবর দান শুরু

সাধু সাধু ধ্বনিতে মুখর রাজবন বিহার

রাঙামাটি প্রতিনিধি

০৩ নভেম্বর ২০২২, ১৯:৪৭ পিএম । আপডেটঃ ০৩ নভেম্বর ২০২২, ১৯:৪৮ পিএম

রাঙামাটির রাজবন বিহারে দুই দিনব্যাপী বৌদ্ধ ধর্মাবলন্বীদের দানোত্তম কঠিন চীবর দান শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (০৩ নভেম্বর)  বিকালে বেইন ঘর এবং চরকায় সূতা কেটে উদ্বোধন করেন রানী ইয়েন ইয়েন।

রাঙ্গামাটির রাজবন বিহার উপাসক উপাসিকা পরিষদের সহ-সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অংসুইপ্রু চৌধুরী এর সভাপতিত্বে এ দান অনুষ্ঠানে রাজবন বিহারের প্রধান পৃষ্ঠপোষক চাকমা সার্কেল রাজা ব্যারিষ্টার দেবাশীষ রায়, নিরুপা দেওয়ান, রাজবন বিহার উপাসক উপাসিকা পরিষদেও অমীয় কান্তি খীসা সহ গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

এসময় পূর্ণ্যার্থীদের সাধু সাধু ধ্বনিতে মুখরিত পুরো রাজবন বিহার প্রাঙ্গণ।  শুক্রবার (০৪ নভেম্বর) বিকালে ভিক্ষু সংঘের কাছে এই চীবর দান করা হবে। দুইদিন ব্যাপি এ উৎসবকে ঘিরে বসেছে গ্রামাীন মেলা।

রাজবন বিহারের কার্যকরী কমিটির সূত্রে জানা গেছে, রাজবন বিহারের বিশাল এলাকা জুড়ে প্রায় ১৯৯ টি বেইন স্থাপন করা হয়েছে। এতে শতাধিক মহিলা-পুরুষ এই চীবর প্রস্তুত কাজে অংশ গ্রহণ করে। উৎসবকে ঘিরে  যথাযথ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

চাকমা সার্কেল রাজা ব্যারিষ্টার দেবাশীষ রায় বলেন, অন্য অন্য বছরের তুলনায় এ বছরও দেশের বাইরে থেকে কিছু সংখ্যক বিদেশী পূর্ণ্যার্থী এসেছেন। তিনি দেশবাসী সহ সারা বিশে^র মঙ্গল কামনা করেন।

উল্লেখ্য, বৌদ্ধ ভিক্ষুদের পরিধেয় গেরুয়া কাপড়কে বলা হয় চীবর। ২৪ ঘন্টার মধ্যে তুলা থেকে চরকায় সূতা কেটে, সূতা রং করে আগুনে শুকিয়ে সেই সুতায় তাঁতে কাপড় বুনে চীবর তৈরী করে বৌদ্ধ ভিক্ষুদের দান করা হয় বলে এর নাম কঠিন চীবর দান। পার্বত্য এলাকার বৌদ্ধরা এ উৎসব পালিত হয় প্রাচীন নিয়মে। প্রাচীন নিয়ম মতে  ২৪ ঘন্টার মধ্যে চীবর তৈরী করে বৌদ্ধ ভিক্ষুদের উৎসর্গ করা হয়।

বৌদ্ধ শাস্ত্র মতে, দীর্ঘ আড়াই হাজার বছর পূর্বে গৌতম বুদ্ধের উপাসিকা বিশাখা ২৪ ঘন্টার মধ্যে চীবর তৈরীর প্রচলন করেছিলেন। প্রতি বছর আষাড়ী পূর্ণিমা থেকে কার্তিকী পূর্ণিমা পর্যন্ত তিন মাস বৌদ্ধ ভিক্ষুদের বর্ষাবাস শেষে বৌদ্ধ ভিক্ষুদের চীবর  দান করতে হয়। এরই ধারাবাহিকতায় ১৯৭৩ সাল থেকে বুদ্ধের উপাসিকা বিশাখা প্রবর্তিত নিয়মে রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারে ৪৯ বছর ধরে কঠিন চীবর দান উৎসব উদযাপিত হয়ে আসছে।

বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের মতে, জগতে যত প্রকার দান রয়েছে তার মধ্যে এ চীবর দানই হচ্ছে সর্বোত্তম দান। ২৪ ঘন্টার পরিশ্রমে তৈরী করা এ চীবর চাকমা রাজা ব্যারিষ্টার দেবাশীষ রায় পার্বত্য ধর্মীয় গুরু বনভান্তের স্মৃতির উদ্দেশ্যে শুক্রবার ভিক্ষু সংঘের নিকট এ চীবর উৎসর্গ করবেন। রাতে রাজবন বিহারে ফানুষ উড়িয়ে শেষ হবে এ কঠিন চীবর দান উৎসব।

Sangbad Sarabela

সম্পাদক: আবদুল মজিদ

প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । sangbadsarabela26@gmail.com, বিজ্ঞাপন: 01894-944204

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2023 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.