× প্রচ্ছদ বাংলাদেশ বিশ্ব রাজনীতি খেলা বিনোদন বাণিজ্য লাইফ স্টাইল ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

সোনারগাঁয়ে আ.লীগ-জাপার নির্বাচনী প্রচারণা জমজমাট

আল আমীন প্রধান, সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ)

৩০ ডিসেম্বর ২০২৩, ১২:৩২ পিএম

নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ) আসনে দীর্ঘ ১০ বছর পর নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মনোনীত হওয়ায় পুরো সোনারগাঁয়ের নির্বাচনী এলাকায় খুশির জোয়ারে প্রচার প্রচারণা করতে দেখা গিয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে।

অন্যদিকে দীর্ঘ ১০ বছর ধরে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জাতীয় পার্টির দলীয় প্রতীক লাঙ্গল নিয়ে এমপি নির্বাচিত হওয়া লিয়াকত হোসেন খোকার সমর্থনকারীরা আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন। প্রতীক বরাদ্ধের পরে সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও আবদুল আল কায়সারের পিতা প্রয়াত আবুল হাসনাতের কবর জিয়ারত করে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত। প্রচারণার প্রথম দিন থেকেই তার প্রচারণায় সাধারণ মানুষের উপচেপড়া ভিড়।

ইতিমধ্যে নৌকার প্রার্থী কায়সার তার নির্বাচনী প্রচারণার রোডম্যাপ প্রকাশ করে সবার সহযোগিতা চেয়েছেন। নির্বাচনী প্রচারণায় নেতৃত্ব দিতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সামসুল ইসলাম ভূঁইয়া ও সিনিয়র সহ-সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুমসহ উপজেলা আওয়ামী লীগের সব নেতাকর্মীদের অংশগ্রহণে ভিন্ন এক দলীয় ঐক্য দেখা যাচ্ছে সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের।

উল্লেখ্য যে, জোটের মধ্যে সমঝোতার কারণে গত দুটি সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৩ আসন জাতীয় পার্টিকে ছেড়ে দেয় আওয়ামী লীগ। ফলে সেখানে নৌকার প্রার্থী ছিলেন না। তাই স্থানীয়রা মনে করছেন দীর্ঘ১০ বছর পর আসন পুণরুদ্ধারই আনন্দ মিছিল ও প্রচারণায় ব্যাপক উপস্থিতির মূল কারণ।

বিভিন্ন ইউনিয়নে প্রচারণায় জমে উঠেছে আশপাশের এলাকার চায়ের দোকান থেকে শুরু করে প্রতিটি মহল্লা। এই আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী কায়সারসহ ৭ জন প্রার্থীকে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এ দের মধ্যে লিয়াকত হোসেন খোকা (জাতীয় পার্টি) পেয়েছেন 'লাঙ্গল' প্রতীক, মো. মজিবুর রহমান মানিক (বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশন) পেয়েছেন 'ফুলের মালা', মোহাম্মদ আসলাম হোসেন (বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টি) পেয়েছেন 'একতারা', এবিএম ওয়ালিউর রহমান খান (বিএনএম) পেয়েছেন 'নোঙ্গর', নারায়ণ দাস (বিকল্প ধারা বাংলাদেশ) পেয়েছেন 'কুলা', মো. আরিফ (মুক্তিজোট) পেয়েছেন 'ছড়ি',

এএইচএম মাসুদ দুলাল (স্বতন্ত্র) পেয়েছেন 'ঈগল' প্রতীক। এদের মধ্যে এএইচএম মাসুদ দুলাল নৌকার প্রার্থীকে সমর্থন দিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। এলাকাবাসীর দাবি, এবার মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে নৌকার প্রার্থী কায়সার হাসনাত ও লাঙ্গলের প্রার্থী লিয়াকত হোসেন খোকার মধ্যে। এরই মধ্যে এই দুই প্রার্থীর সমর্থক ও নেতাকর্মীদের মধ্যে বারদী ও সোনারগাঁ পৌরসভার মধ্যে একাধিক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁকে (নারায়ণগঞ্জ-৩) মনে করা হয় আওয়ামী লীগের ঘাঁটি। স্বাধীনতার পর থেকে বেশ কয়েকবার এ আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। কিন্তু ২০১৪ সাল থেকে পাল্টাতে থাকে এখানকার রাজনৈতিক চিত্র। সরকার দলীয় জোটের কল্যাণে জাতীয় পার্টির টিকিটে ওই বছর সংসদ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁও) আসনে নির্বাচিত হন লিয়াকত হোসেন খোকা।ঐ সময় জোটগত কারণে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল কায়সার হাসনাতের চাচা মো. মোশারফ হোসেনকে তার মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিতে বাধ্য করা হয়। ২০১৮ সালে এ আসনে তিনি আবারো জোটে প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পেলে সাবেক সাংসদ আব্দুল্লাহ আল কায়সার সিংহ প্রতীকে স্বতন্ত্র নির্বাচনে অংশ নেন। কায়সারের বিপুল জনপ্রিয়তাকে ভয় পেয়ে নির্বাচনের মাত্র দুদিন আগে কায়সারের বাড়িতে হামলা করে এবং প্রশাসনের কর্মকর্তাদের ব্যবহার করে তাকে জিম্মি করে নির্বাচন থেকে সরিয়ে দেন বলে অভিযোগ করেন সাবেক সংসদ সদস্য ও নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের আওয়ামী লীগের মনোনীত সংসদ সদস্য আব্দুল্লাহ আল কায়সার। স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা জানান, লিয়াকত হোসেন খোকা ২০১৮ সালে দ্বিতীয় বারের মতো এমপি হওয়ার পর স্থানীয় আওয়ামী লীগের ওপর নেমে আসে অলিখিত টর্চার। স্থানীয় আওয়ামী লীগকে তিনি নিজের কব্জায় নিতে নানা ষড়যন্ত্র শুরু করেন। আওয়ামী লীগের অনেক নেতাকর্মীকে ভয় ও প্রলোভন দেখিয়ে জাতীয় পার্টিতে যোগদান করান।

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে প্রচারণার অংশ হিসাবে নৌকা প্রতিকে আওয়ামীলীগ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বৈদ্যোর বাজার ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় কায়সার হাসনাত গণসংযোগ চালিয়ে ভোট প্রার্থনা করেন।

এসময় সাবেক সাংসদ আব্দুল্লাহ আল কায়সার বলেন, গত ১০টি বছর সোনারগাঁ নৌকার কোন এমপি ছিলনা। এবার প্রধানমন্ত্রী আপনার প্রিয় মার্কা নৌকা দিয়ে আমাকে আপনাদের খেদমত করার সুযোগ দিয়েছেন। এর আগে আমি যখন এমপি ছিলাম তখন এ এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। গত ১০টি বছর নৌকার এমপি না থাকায় কোথাও উল্লেখযোগ্য উন্নয়ন হয়নি। প্রধানমন্ত্রী যা বরাদ্ধ দিয়েছেন সে উন্নয়ন ছাড়া অতিরিক্ত কোন উন্নয়ন এ এলাকায় দেখা যায়নি।

আগামী সংসদ নির্বাচনে আমি নির্বাচিত হলে উপজেলায় উন্নয়নের জন্য নিজেকে বিলিয়ে দিবো। সেজন্য আগামী ৭ই জানুয়ারী আপনার মূল্যবান ভোট নৌকায় দিয়ে আমাকে আপনাদের সেবা করার সুযোগ দিবেন এটাই আমার আপনাদের কাছে চাওয়া।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ-৩ আসন থেকে জাতীয় পার্টির দুই বারের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টির দলীয় প্রতীক লাঙ্গল নিয়ে তৃতীয়বারের মতো সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার লক্ষে প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন সোনারগাঁ উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা।

Sangbad Sarabela

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । [email protected], বিজ্ঞাপন: 01894-944204

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2024 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.