× প্রচ্ছদ বাংলাদেশ বিশ্ব রাজনীতি খেলা বিনোদন বাণিজ্য লাইফ স্টাইল ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

মোহনপুর পর্যটনে আবারও সন্ত্রাসী হামলা

মতলব (চাঁদপুর) প্রতিনিধি

০৪ জানুয়ারি ২০২৪, ১৬:৫০ পিএম । আপডেটঃ ০৪ জানুয়ারি ২০২৪, ১৭:৫৯ পিএম

শুধুই কি রাজনৈতিক প্রতিহিংসা নাকি এর পিছনে লুকিয়ে আছে অন্য কোন হীন স্বার্থ? স্থানীয়রা বুঝে উঠতে পারছেন না ঠিক কোন কারণে এমন হামলা চালানো হচ্ছে? তবে অনেকেই বলছেন, বাংলাদেশের একমাত্র মিঠাপানির বিচটির ওপর নজর পড়েছে দুবৃর্ত্তদের। তারাই ষড়যন্ত্র করে বিচটি দখলে নেওয়ার পাঁয়তারা চালাচ্ছে। পরিকল্পনা বাস্তবায়নে এই জঘন্য ঘৃণ্য হামলা। যদিও এ হামলার জন্য বিচ কর্তৃপক্ষ প্রশাসনে সাহায্য চেয়ে অভিযোগ করেছেন। তারপরেও ঘটছে এমন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। 

অনেকেই বলছেন, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে একটি মহল পরিকল্পিতভাবে ন্যক্কারজন হামলা চালিয়েছে। যা  এক মাসের ব্যবধানে দ্বিতীয় বারের মতো ঘটেছে। অথচ আইনি সুরক্ষার জন্য কর্তৃপক্ষ প্রশাসনের কাছে অভিযোগ করেও কোনো সাহায্য পাননি। 

জানা গেছে, চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার মোহনপুরে দেশের একমাত্র মিঠাপানির বিচ। 

বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারি) সকাল ৯টায় একদল সন্ত্রাসী মোহনপুর পর্যটনের ওপর হামলাা চালায়। এসময় তারা সিসি টিভি ভাঙচুরসহ নানা ধরনের ধ্বংসযজ্ঞ চালায়। যারা হামলা চালিয়েছে তারা সবাই এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী। এরা হচ্ছে, মোহনপুর ইউনিয়নের রুপমিয়া খালাসীর ছেলে শাহীন খালাসী, আক্তার খালাসীর ছেলে শামীম খালাসী ও জহির খালাসী, নবীর হোসেন খালাসীর ছেলে নুরু ইসলাম, তফা খালাসীর ছেলে আলো খালাসী, নাবালক খালাসীর ছেলে রিতু খালাসী, বারেক বেপারীর ছেলে পাবেল, হাজিল মুন্সীর ছেলে আবু তাহের এবং আরো ৪/৫ জন। তারা চাাঁদার দাবিতে এই হামলা চালিয়েছে। দেশে যখন চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে বর্তমান সরকার জিরো টলারেন্স নীতি নিয়ে এগুচ্ছেন তখন এই ধরনের হামলা সাধারণ মানুষকে বাকরুদ্ধ  করছে। সন্ত্রাসীরা কেবল হামলা ও ভাঙচুর করেই ক্ষান্ত হয়নি তারা পর্যটনের ৬টি সিসি ক্যামেরা ভাঙচুর করেছে।  এসময় সন্ত্রাসীরা  অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ, কাজে এলে লাশ ফেলে দেয়া হবে, পর্যটন বন্ধ করতে নির্দেশ দেয়। এমনকি কর্মরত  শ্রমিকদেরকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়।

সন্ত্রাসীরা দীর্ঘদিন যাবত মোহনপুর পর্যটনের কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে চাঁদা দাবি করে আসছে। চাঁদা না দিলে তারা বিচটি বন্ধ করে দেওয়ার হুমকিও দিয়েছে। এসব বিষয়ে বিচ কর্তৃপক্ষ প্রশাসনের কাছে অভিযোগও দেন। গত বছরের ১২ ডিসেম্বর প্রথমবারে এ ধরনের ঘটনা ন্যক্কারজনক ঘটনা এবং ভাঙচুর চালানো হয়।  তখন  কর্তৃপক্ষ হামলাকারীদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনের আওতায় এনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার  আবেদন করে। 

মোহনপুর পর্যটনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও মোহনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী মিজানুর রহমান গত ১২ ডিসেম্বর চাঁদপুর জেলা প্রশাসক বরাবর এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগও দেন। কিন্তু  প্রায় একমাস পেরিয়ে গেলেও প্রশাসন সুরক্ষার কোনো উদ্যোগ নেয়নি, পক্ষান্তরে দুর্বৃত্তরা দ্বিতীয় বার হামলা চালানোর দুঃসাহস দেখিয়েছে। এমনকি আগত দর্শনার্থীদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে প্রকারন্তে সরকারের রাজস্ব আয়ের একটি প্রধান উৎস ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। সন্ত্রাসীদের এমন কার্যকলাপ চলতে থাকলে এই পর্যটনশিল্পটি বন্ধ হয়ে যাবে। ফলে শত শত লোক কর্মহীন হয়ে পড়বে, সেই সাথে সরকার হারাবে মোটা অংকের রাজস্ব।

স্থানীয়রা জানান, মোহনপুর পর্যটনশিল্পটি প্রতিষ্ঠা হওয়ায় পর্যটনে শত শত লোকের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে, আমাদের এলাকার অনেক উন্নয়ন হয়েছে। এই মোহনপুর পর্যটনের কারণে এলাকার মানুষের মুখে হাসি ফুটেছে। তারা দুর্বৃত্তদের এ ধরনের কর্মকাণ্ডে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। অবিলম্বে আক্রমণকারীদের আইনের আওতায় এনে মোহপুর পর্যটন কেন্দ্রটির সুরক্ষা নিশ্চিত করার দাবি তুলেছেন এলাকাবাসী। একই সাথে তারা সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে দ্রুতই আইনে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার দাবিও জানিয়েছে।

Sangbad Sarabela

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । [email protected], বিজ্ঞাপন: 01894-944204

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2024 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.