× প্রচ্ছদ বাংলাদেশ বিশ্ব রাজনীতি খেলা বিনোদন বাণিজ্য লাইফ স্টাইল ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

মতলব উত্তরে সন্ত্রাসী হামলার শিকার সংবাদ সারাবেলার সাংবাদিক তুহিন ফয়েজ

নিজস্ব প্রতিবেদক

০৪ জানুয়ারি ২০২৪, ১৮:২৭ পিএম

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলায় পূর্ব শত্রুতার জেরে সন্ত্রাসীদের হামলায় মো. তুহিন ফয়েজ (৪৩) নামে জাতীয় দৈনিক সংবাদ সারাবেলা  ও মুসলিম টাইমস পত্রিকার স্থানীয় সাংবাদিক গুরুতর আহত হওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টায় উপজেলার এখলাশপুর ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। 

ওই সাংবাদিক এখন চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। হামলাকারীরা স্থানীয় যুবলীগ ও আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত বলে জানিয়েছে ওই সাংবাদিকের পরিবার।

হামলায় গুরুত্বর আহত মো. তুহিন ফয়েজ উপজেলার এখলাশপুর গ্রামের সামসুল হক বেপারীর ছেলে। তুহিন ঢাকা থেকে প্রকাশিত বাংলা জাতীয় দৈনিক সংবাদ সারাবেলা ও ইংরেজি দৈনিক দ্য মুসলিম টাইম এর মতলব উপজেলা প্রতিনিধি। তিনি মতলব উত্তর প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদকও।

মো. তুহিন ফয়েজ অভিযোগ করে বলেন, গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টায় পেশাগত দায়িত্ব পালন শেষে উপজেলার এখলাশপুর গ্রামে অবস্থিত তার শ্বশুরবাড়ি হেঁটে যাচ্ছিলেন। এখলাশপুর ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স এলাকায় পৌঁছালে পূর্ব শত্রুতার জেরে এখলাশপুর গ্রামের ছানা উল্লাহ মোল্লার ছেলে মো. রিয়াদ মোল্লা, হেলমেট পরা ও মুখঢাকা আরো দুজন তার পথরোধ করে। পরে এখলাছপুর ইউনিয়নের মৃত জয়নালের ছেলে যুবলীগ নেতা বাদশা মিয়া ও একই গ্রামের মৃত সাইফুল সরকারের ছেলে আওয়ামী লীগ নেতা রহমত উল্লাহ সরকার লিখনসহ আরও ২০/২৫ জন প্রথমে তাকে  ইউনিয়ন পরিষদের কাছ থেকে টেনে-হেছড়ে নেছারের চা দোকানের সামনে নেয়। পরে ইউনিয়ন পরিষদের সামনে নিয়ে এলোপাতাড়ি কিলঘুষি মারতে থাকে। একপর্যায়ে লাঠিসোঁটা নিয়েও তাকে বেধড়ক পেটাতে থাকে। এতে তার মাথা, হাত, গলা, পিঠ ও বুকসহ শরীরের বিভিন্ন অংশ জখম হয়। হামলাকারীরা তার হাতে থাকা মুঠোফোনের সেটটিও ছিনিয়ে নেয় এবং তার ফেসবুক আইডি থেকে মায়া চৌধুরীর ছবি সম্বলিত একটি পোস্টার পোস্ট দেন এবং প্রায় ১ ঘণ্টা আটকে রেখে জোরপূর্বক বিভিন্ন বিষয়ে তার জবানবন্দী নেয় ৷

এ সময় তার চিৎকার শুনে এখলাশপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মফিজুল ইসলাম ওরফে মুন্নার হামলাকারীদের কাছ থেকে মো. তুহিন ফয়েজকে উদ্ধার করে আওয়ামী লীগ নেতা সাহিন বেপারীর মোটোরসাইকেলযোগে গুরুতর আহত অবস্থায় তার শুশ্বরবাড়ি পাঠিয়ে দেয় ৷

পরে মতলব উত্তর থনার এস আই মিজানের নেতৃত্বে ৩ সদস্যর পুলিশের একটি টিম সেখান থেকে তাকে চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তির উদ্দেশ্যে মতলব ব্রিজ টোল পালাজায় পৌছেদেন সেখান থেকে তার স্বজনরা নিয়ে গিয়ে রাত ২টায় চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করান ৷

চিকিৎসকের বরাত দিয়ে ওই সাংবাদিকের পরিবার সূত্র জানায়, তার অবস্থা শঙ্কামুক্ত নয়। মাথায়, গলায়, পিঠসহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় মারাত্মক জখম রয়েছে ৷

তুহিন ফয়েজ অভিযোগ করে আরও বলেন, সংবাদ প্রকাশকে কেন্দ্র করে ও পূর্ব শত্রুতার জেরে হত্যার উদ্দেশ্যে তার ওপর এ হামলা চালানো হয়েছে। বিষয়টি পুলিশকে জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতিও নিচ্ছেন। ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন তিনি। 

অভিযোগের ব্যাপারে স্থানীয় যুবলীগ নেতা বাদশা মিয়া ও আওয়ামী লীগ নেতা রহমত উল্লাহ সরকার ও ছানা উল্লা মোল্লার ছেলে মো. রিয়াদ মোল্লার মুঠোফোন নম্বরে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে সংযোগ বন্ধ পাওয়া যায়।

মতলব উত্তর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সানোয়ার হোসেন বলেন, বিষয়টি জানার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি এবং তুহিন ফয়েজকে চিকিৎসার জন্য পুলিশের গাড়িতে করে মতলব ব্রিজ টোল প্লাজা এলাকায় সাংবাদিক শাহআলম মল্লিকের কাছে হস্তান্তর করা হয় ৷ এ বিষয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ বা মামলা হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Sangbad Sarabela

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । [email protected], বিজ্ঞাপন: 01894-944204

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2024 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.