× প্রচ্ছদ বাংলাদেশ বিশ্ব রাজনীতি খেলা বিনোদন বাণিজ্য লাইফ স্টাইল ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

লক্ষীপুর-২: নৌকার দুর্গে ঈগলের থাবা, শঙ্কিত নয় ভোটাররা

মাহমুদুর রহমান মনজু, লক্ষ্মীপুর

০৪ জানুয়ারি ২০২৪, ১৮:৫৪ পিএম । আপডেটঃ ০৪ জানুয়ারি ২০২৪, ২৩:০১ পিএম

লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলার একটি পৌরসভা, ১০টি ইউনিয়ন ও লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন নিয়ে লক্ষ্মীপুর-২, সংসদীয় আসন ২৭৫ গঠিত। এ আসনে ভোটার সংখ্যা ৪ লক্ষ ৫১ হাজার ৪২৬ জন, এর মধ্যে পুরুষ ২ লাখ ৩১ হাজার ৮৮৯ জন, মহিলা ভোটার ২ লাখ ১৯ হাজার ৫৩৫ জন ও হিজরা ২ জন ভোটার রয়েছেন। এবার এ আসনে প্রতিদ্বন্ধিকারী দুই নারী প্রার্থীসহ বারজনই ব্যবসায়ী ও একজন আইনজীবী প্রার্থী হয়েছেন। 

১৯টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত এ আসনে ১৪৬টি ভোটকেন্দ্রের ৯৭৬টি ভোট কক্ষের মাধ্যমে ভোট গ্রহণ চলবে আগামী ৭ জানুয়ারি। 

ভোটাররা বলছে, এ আসনের বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে রয়েছে সম্ভাবনাময় চরাঞ্চল। স্বাধীনতার পর থেকে এ আসনে জনগণের আর্থসামাজিক পরিবর্তন, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, কলকারখানা স্থাপন ও কর্মসংস্থানের সৃষ্টি না করে এ অঞ্চল সন্ত্রাসের জনপদ হিসেবে পরিচিতি লাভ করে। এসবের পিছনে জনপ্রতিনিধিরাই সরাসরি মদদে ছিলো। একাদশ সংসদ নির্বাচনে এ আসনে নতুন করে প্রভাব পড়ে কালো টাকার। ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী আপেল প্রতীকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল। সংসদীয় এলাকায় তেমন কোন উন্নয়ন কর্মকান্ড না করলেও নিজের স্ত্রী সেলিনা ইসলামকে সংরক্ষিত আসনে সংসদ সদস্য করে নেন। সেলিনা ইসলাম ছিলেন কুমিল্লা উত্তর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি। স্বামী-স্ত্রী একই সময়ে সংসদ সদস্য হওয়ায় বেশ আলোচনাও ছিলো তবে উন্নয়ন কর্মকান্ডে তাদের উপস্থিতি তেমন চোখে পড়েনি।

তবে কুয়েতে একটি ক্লিনিং কোম্পানির সুপারভাইজার থেকে অবৈধভাবে কোটিপতি বনে যাওয়া সংসদ সদস্য পাপুলের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালে বাংলাদেশে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আাড়াই বছর পর তদন্ত শুরু করে কুয়েত সিআইডি। কুয়েত সিআইডির দাবি, অন্তত ২০ হাজার মানুষকে কুয়েতে পাচার করে এক হাজার ৪০০ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে পাপুল চক্র। এরপর আস্তে আস্তে বের হতে থাকে পাপুল-সেলিনার থলের কালো বিড়াল। ২০২০ সালের ১১ নভেম্বর ১৪৮ কোটি টাকা পাচারের দায়ে পাপুল ও তার স্ত্রী সেলিনার বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক। ২২ ডিসেম্বর পাপুল, তার মেয়ে ও শ্যালিকাসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা করে সিআইডি। এ মামলায় একই বছর ২৭ ডিসেম্বর স্ত্রী, মেয়ে ও শ্যালিকাসহ পাপুলের ৬১৭টি অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ ও সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ দিয়ে জামিন দেন ঢাকা দায়রা জজ আদালত। আদালতে দন্ডপ্রাপ্ত হওয়ায় ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারীতে সংসদ সদস্য পদ হারান কুয়েত জেলে আটক দন্ডপ্রাপ্ত আসামী কাজী শহিদ ইসলাম পাপুল। পরে উপ-নির্বাচনে বিপুল ভোটে বিজয়ী হন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী  এডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন।

তবে এবার দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে তফসিল ঘোষণার পরপরই আবারো সক্রিয় হয়ে উঠে পাপুল স্ত্রী সেলিনা ইসলাম। সংসদ সদস্য হিসেবে পাপুল আড়াই বছর ও তাঁর স্ত্রী বিগত পাঁচ বছরে এ আসনের জনগণের পাশে না থাকায় ঈগল প্রতীকে ভোট চাইতে গিয়ে অনেকটা ধরাশায়ী স্বতন্ত্র প্রার্থী সেলিনা ইসলাম।

আগামী ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন। এবার এ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌতা প্রতীকে নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন, জাতীয় পার্টির বোরহান উদ্দিন আহম্দে, স্বতন্ত্র প্রার্থী সমাজসেবক চৌধুরী রুবিনা ইয়াছমিন লুবনা, জাসদ সমর্থিত আমির হোসেন, তৃণমূল বিএনপির আবদুল্লাহ আল মাসুদ, বাংলাদেশ সুপ্রীম পার্টিও জহির হোসেন, বাংলাদেশ কংগ্রেস পার্টিও মো. মনসুর রহমান দাদন গাজী, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের মোরশেদ আলম,বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট এর শরীফুল ইসলাম, বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোটের ইমাম উদ্দিন সুমন, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির ফরহাদ মিয়া, স্বতন্ত্র ঈগল প্রতীকের সেলিনা ইসলাম ও স্বতন্ত্র ট্রাক প্রতীকের এ এফ জসীম উদ্দিন।

তবে ভোটের মাঠে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকে এডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন, জাতীয় পার্টি সমর্থিত লাঙ্গল প্রতীকের বোরহান উদ্দিন আহমেদ, তৃণমূল বিএনপির সোনালী আঁশ প্রতীকের আবদুল্লাহ আল মাসুদ, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির হাতঘড়ি প্রতীকের ফরহাদ মিয়া ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ঈগল প্রতীকের সেলিনা ইসলাম প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। 

এদিকে তৃণমূলে সরকারী উন্নয়ন কর্মকান্ড পৌঁছে দেয়া, দলমত নির্বিশেষে গণমানুষের পক্ষে কাজ করায় ও দলীয় শৃঙ্খলা বজায় রাখায় এককভাবে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন এগিয়ে রয়েছেন, এমনটিই দাবি স্থানীয়দের।

তবে কয়েকটি ইউনিয়নে কালো টাকার থাবা পড়ে গোপনে স্বতন্ত্র প্রার্থীর হয়ে ভোট করে স্থানীয়দের রোষানলে পড়তে দেখা যায় অনেককে। অনেকেই বলছেন, ভোটের বাকি এখনো দুইদিন। তার আগেই ঘরের ছেলে ঘরে ফিরে আসবে। কালো টাকার কাছে কেউ বিক্রি হবে না।

সংসদীয় আসনের বেশ কয়েকটি এলাকা ঘুরে দেখা যায়, লক্ষ্মীপুর-২ আসনে নৌকা প্রতীকের সমর্থনে প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত সংগঠনটির নেতাকর্মীরা। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ লক্ষ্মীপুর জেলা শাখা ও এর সকল সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে চলছে এ আয়োজন। নৌকাকে বিজয়ী করতে মরিয়া তৃণমূল আওয়ামীলীগের কর্মীরা।

অনেকেই অভিযোগ করেছেন, দলে বিভেদ সৃষ্টির জন্য লক্ষ্মীপুরে জামায়াত-বিএনপিসহ সমমনা দলের নেতাকর্মীদের সাথে হাত মিলিয়ে প্রার্থী হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী সেলিনা ইসলাম। তবে পেশী শক্তি আর টাকার শক্তিতে নয়, জনগণের শক্তিতেই নৌকা বিজয়ী হবে, এমনটাই ধারণা স্থানীয়দের।

সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন নিয়মিত টহল কার্যক্রম করায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন ভোটাররা।

Sangbad Sarabela

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । [email protected], বিজ্ঞাপন: 01894-944204

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2024 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.