× প্রচ্ছদ বাংলাদেশ বিশ্ব রাজনীতি খেলা বিনোদন বাণিজ্য লাইফ স্টাইল ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

প্রশাসনের অভিযানেও থামছে না ফসলি জমির মাটি কাটা

কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি

১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫:২৯ পিএম

গাজীপুরের কালীগঞ্জে অবৈধভাবে প্রকাশ্যে ফসলি জমির মাটি কাটার কর্মযজ্ঞ চালাচ্ছে প্রভাবশালী একটি মহল। চলছে ফসলী জমির মাটি কাটার উৎসব এবং কৃষি জমি পরিনত হচ্ছে ডোবায়। তাতে করে প্রতিনিয়ত ফসলের উৎপাদন কমছে, বেকার হচ্ছে কৃষক, পরিবেশ হচ্ছে দূষিত।

সরেজমিনে দেখা যায়, লড়ি দিয়ে মাটি পরিবহনের কারনে উপজেলার তুমলিয়া ইউনিয়নের মালিবন্দ, ফিরিন্দা, টিওরী, সানাইয়া পর্যন্ত প্রায় ৫ কিলোমিটার রাস্তায় ধুলার কুয়াশায় ডেকে গেছে। এ অবস্থায় সাধারন জনগণ অসহায় জীবন যাপন করছে। মাটি পরিবহনে ভারী ট্রাক ও লড়ি ব্যবহারে ইউনিয়ন ও গ্রামীণ সড়ক হচ্ছে ক্ষতিগ্রস্থ। কালীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে অবৈধ মাটি কাটা বন্ধে ভেকু ও ড্রাম ট্রাক আটক এবং ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে জরিমানা করলেও থামেনি ফসলি জমির মাটি কাটা।

উপজেলা প্রশাসনিক দপ্তর থেকে মাত্র ৫ কিলোমিটারের মধ্যে চলছে এই মাটি কাটার ধুম। এর আগে দিনের বেলায় মাটি কাটলেও প্রশাসনের অভিযানের কারনে এখন কাটা হচ্ছে রাত ১০ টার পর হতে সারারাত ব্যাপী। প্রকাশ্যে অবৈধ ভাবে ফসলি জমির মাটি কাটা দেখলে মনে হয় সরকার থেকে অনুমতি নিয়ে পুকুর খনন করছে। উপজেলার তুমলিয়া ইউনিয়নের মালিবন্দ এলাকায় ভেকু দিয়ে মাটি কাটছে দক্ষিন সোম গ্রামের আল মেহেদী ও আকবর সিন্ডিকেট। 

সম্প্রতি উপজেলার পৌর এলাকার দুর্বাটি গ্রামের নুরুল আলম আকন্দকে কৃষি জমিতে পুকুর খননের অভিযোগে ৫০ হাজার, তুমলিয়া ইউনিয়নের আরা ও মালিবন্দ এলাকায় অভিযান চালিয়ে দুই ব্যবসায়ীকে এক লক্ষ ৫০ হাজার টাকা,বাহাদুরশাদী ইউনিয়নের ঈশ্বরপুর গ্রামের বিল্লাল হোসেনের পুত্র ছলিমউল্লাহকে এক লক্ষ টাকা, দক্ষিণবাগ গ্রামের আরিফুল ইসলামের পুত্র নাদিমকে ৫০ হাজার, বালীগাঁও গ্রামের মৃত রকিব আলীর পুত্র মোঃ সাইফুল ইসলামকে ৫০ হাজার টাকা, ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইন ২০১৩ অনুযায়ী উত্তর সোম গ্রামের আনোয়ার হোসেনের পুত্র বিজয় মিয়াকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। বালু মহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন ২০১০ অনুযায়ী ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে জরিমানা আদায় করেন সহকারী কমিশনার (ভুমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট উম্মে হাফছা নাদিয়া।

অনুসন্ধানে জানা যায়, কালীগঞ্জের নিকটবর্তী নারায়নগঞ্জ জেলার রুপগঞ্জ উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নে শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে প্রায় ২০টি ইটভাটা রয়েছে। উৎপাদিত ইটের কাঁচামাল হিসেবে প্রায় ৭০ শতাংশ মাটি সরবরাহ হয় কালীগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন ফসলি জমি থেকে। র্দীঘদিন যাবত চলছে মাটি কাটার এ কর্মযজ্ঞ। স্থানীয় প্রভাবশালী রাজনৈতিক দলের নেতা ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা এর সাথে জড়িত রয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক এলাকাবাসী জানায়, ভূমিদস্যুরা জমির মাটি ভেকু দিয়ে ১০/১২ ফুট গভীর করে খাড়াভাবে কাটে, যাতে করে অল্প কয়েক দিনের মধ্যে পার্শ্ববতী জমির মাটি ভেঙে পরে যায়।

সরকারি গেজেটে মাটির ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ ও হ্রাসকরণ ২০১৩ সালের ৫৯ নং আইনের ৫ ধারা অনুযায়ী কোন ব্যক্তি ইট প্রস্তুত করার উদ্দেশ্যে কৃষি জমি হতে মাটি কাটা বা সংগ্রহ করে ইটের কাচাঁমাল হিসাবে ব্যবহার করতে পারবে না। যদি কোন ব্যক্তি আইনের এই ধারা লঙ্ঘন করেন তাহলে দুই বৎসরের কারাদন্ড বা ২ লক্ষ টাকা অর্থদন্ড অথবা উভয় দন্ডে দন্ডিত হওয়ার বিধান রয়েছে।

এ সংক্রান্ত বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আজিজুর রহমান প্রতিবেদককে বলেন, কৃষি জমির মাটি কাটার অপরাধে এ পর্যন্ত বেশ কিছু ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে জেল ও জরিমানা করা হয়েছে। অভিযানের সময় ভেকু ও ড্রাম ট্রাকের ড্রাইভার পালিয়ে যাওয়ার কারনে গাড়ীর ব্যাটারী খুলে জব্দ করা হয়েছে। কৃষি জমির মাটি কাটার বন্ধে রাত দিন প্রশাসনের অভিযানে একাধিক টীম কাজ করছে। সহকারী কমিশনার (ভূমি) কে এ ব্যাপারে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ার জন্য বলেছি।

Sangbad Sarabela

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । [email protected], বিজ্ঞাপন: 01894-944204

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2024 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.