× প্রচ্ছদ বাংলাদেশ বিশ্ব রাজনীতি খেলা বিনোদন বাণিজ্য লাইফ স্টাইল ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার ৫ ঘণ্টা পর হাসপাতাল থেকে পালালেন মা!

দুমকি (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি

১৭ এপ্রিল ২০২৪, ১৫:৪৭ পিএম

পটুয়াখালীর দুমকিতে সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার ৫ ঘণ্টার মাথায় হাসপাতাল থেকে পালিয়ে আসার অভিযোগ উঠেছে মা সানজিদা আক্তার পপি (২২) নামের এক তরুণীর বিরুদ্ধে। 

গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পটুয়াখালী সদর হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। 

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়,  উপজেলার আঙ্গারিয়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মো. আব্দুর রব’র ছেলে আলামিন ও শ্রীরামপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মো. মোজাম্মেল চৌকিদারের মেয়ে সানজিদা আক্তার পপির সাথে দেড় বছর আগে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই তাদের দাম্পত্য জীবনে ঝগড়াঝাটি লেগেই থাকতো। এছাড়াও এ নিয়ে থানা পুলিশও হয়েছে কয়েকবার। 

ভুক্তভোগী আলামিন বলেন,  বিবাহের পর থেকেই আমার শ্বাশুড়ি তার মেয়েকে নানান ধরনের কুবুদ্ধি দিয়ে আসছেন এমনকি আমার সাথে বিবাহের আগে সানজিদা অন্য একটা ছেলের সাথে পালিয়ে গিয়েছিল তা গোপন করে আমার সাথে বিবাহ দিয়েছে। তাও আমি মেনে নিয়েও সংসার করার চেষ্টা করেছি। একপর্যায়ে সানজিদার পেটে বাচ্চা আসলে তার মা বাচ্চাকে নষ্ট করার ষড়যন্ত্র করে কিন্তু আমার জন্য পারেনি। গত সোমবার সানজিদাকে দুমকি হসপিটালে নিয়ে ঔষধ খাওয়ায়ে বাচ্চা নষ্ট করতে চেয়েছে কিন্তু ডক্টর সানজিদাকে পটুয়াখালী সদর হসপিটাল রেফার করেন এবং নরমাল ডেলিভারিতে মঙ্গলবার দুপুরে একটি কন্যা সন্তান জন্ম নেন। বাচ্চা জন্ম নেয়ার ৫ ঘন্টার মাথায় হসপিটাল থেকে আমার শ্বাশুড়ি আমার নবজাতক বাচ্চা ফেলে রেখে তার মেয়েকে নিয়ে পালিয়ে যান। আমার মনে হচ্ছে আগে যে ছেলের সাথে পালিয়ে গিয়েছিল তার সাথে হয়তো আবার বিয়ে দিবেন এজন্যই সন্তান রেখে পালিয়ে গেছেন। 

এবিষয়ে সানজিদার বাবা মোজাম্মেল চৌকিদার বলেন, আমার মেয়ের সন্তান ডেলিভারির সঠিক সময় হয়নি। কিন্তু আলামিন আমার মেয়ের পেটের ৮ মাসের  বাচ্চা নষ্ট করতে দুমকি বাজারে বসে পেটের উপর লাথি কিল-ঘুষিসহ মারধর করেন একপর্যায়ে আমি আমার মেয়েকে হসপিটালে নিয়ে গেলে সেখানে ব্লিডিং শুরু হয় তখন আমরা ভয় পেয়ে যাই এবং সাথে পটুয়াখালী সদর হসপিটালে নিয়ে গেলে নরমাল ডেলিভারিতে  মেয়ে সন্তান জন্ম নেন। তবে বাচ্চা জন্ম নেয়ার পর পরিপূর্ণ বয়স না হওয়ায় অসুস্থ ছিলো। তাই আমরা বাচার জন্য তাদের পরিবারের হাতে বাচ্চা বুঝিয়ে দিয়ে আমার মেয়ে নিয়ে চলে আসি। তবে এর আগে আলামিন আমার মেয়ের উপর  অমানবিক নির্যাতন করেছেন যা থানাপুলিশসহ এলাকার গণ্যমান্য সবাই জানে। তবে পরকীয়ার বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা। 

Sangbad Sarabela

সম্পাদক ও প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । সম্পাদক: 01703-137775 । [email protected] । বিজ্ঞাপন ও বার্তা সম্পাদক: 01894944220

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2024 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.