× প্রচ্ছদ জাতীয় সারাদেশ রাজনীতি বিশ্ব খেলা আজকের বিশেষ বাণিজ্য বিনোদন ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

‘নরডিক এগ্রো গার্ডেন’ একটি পরিবেশবান্ধব বিনোদন কেন্দ্র

আব্দুল বাছিত বাচ্চু, মৌলভীবাজার

১৩ মে ২০২২, ২০:৪৩ পিএম । আপডেটঃ ১৩ মে ২০২২, ২১:২২ পিএম

ছবি: সংবাদ সারাবেলা

মৌলভীবাজারের নরডিক এগ্রো নগার্ডেনের পাশ দিয়ে বয়ে গেছে খরস্রোতা মনু নদ। ফলে এখানের মাটিও বেলে দোঁ-আশ। মানে সব ধরনের ফসলের জন্য অত্যন্ত উর্বর ।

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের  হরিচক ও সাধনপুর গ্রামের মধ্যখানে এমন শতাধিক একর জমির এক বিশাল চর বছরের পর বছর পড়ে ছিলো পতিত। স্থানীয় কৃষকেরা এখানে  কিছু শাক সবজি লাগাতেন । অবশেষে এশিয়া ইউরোপ সহ বিশ্বের  ৭৫ শতাংশ দেশ ভ্রমণ শেষ করে দেশে ফেরা ব্যবসায়ী কাওসার আব্দুস এসব জমির চিত্র পালটে দিয়েছেন। 

তিনি সেখানে গড়ে তুলেছেন 'নরডিক এগ্রো গার্ডেন' নামক একটি বাণিজ্যিক কৃষি খামার '। প্রায় ৫০  একর জমিতে গড়ে উঠা ভিন্নধর্মী এই বাগানে রয়েছে দেশী বিদেশি সবজি ফল ও  ফুলের গাছ।

সেখানে আরও আছে লেবু জাতীয় ফসল,  বিভিন্ন প্রজাতির দেশী-বিদেশি ওষুধি গাছও । 

চারদিকে গড়ে তুলেছেন দৃষ্টিনন্দন একটি লেকও, যেখানে মাছের চাষ করার পাশাপাশি আছে কয়েকটি ডিঙি নৌকা।

দর্শনার্থীরা বিকেলে বাগান দেখতে এসে নৌকায় চড়ে আনন্দ ভ্রমনে মেতে উঠেন। সবকিছু মিলিয়ে প্রতিষ্ঠানটি এখন এলাকার  অর্থনৈতিক লাভজনক প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি হয়ে উঠছে দর্শনীয় বিনোদন কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে।

কুলাউড়ার গ্রামীন জনপদের লোকজনের বিনোদন খরায় ভোগা লোকজনকে আত্মার তৃপ্তি দিতে পারছে নবনির্মত এই ভিন্নধর্মী গার্ডেন।

বিশিষ্ট সমাজসেবক আব্দুল গফুর,  তরুণ আওয়ামী লীগ নেতা সাইফুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা লোকেশ চন্দ্র দাস, ইঞ্জিনিয়ার মিজানুর রহমানসহ আরো অনেকের প্রশংসা ভাসছে এই এগ্রো ফার্মটি। 

সব কিছু মিলিয়ে ব্যবসায়ী কাওসার আব্দুস এখন এক সফল উদ্যোক্তা। তিনি মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নের সাধনপুর গ্রামের আব্দুস শহীদের ৬ ছেলের মধ্যে সকলের বড়।

ফার্মের প্রতিষ্ঠাতা কাওসার আব্দুসের সাথে কথা বলে জানা যায়, ১৯৯৭ সালে জীবিকার তাগিদে তিনি মধ্যপ্রাচ্যের রাস্ট্র বাহরাইনে পাড়ি জমান। সেখানে কয়েক বছর কাটিয়ে পরে কোরিয়া, জাপান ও যুক্তরাষ্ট্রের পাশাপাশি অংসখ্য দেশ ভ্রমণ করে ব্যবসা নিয়ে ভারতে স্থায়ী হন।একসময় দেশে ফিরে দেখেন মনু নদীর এই বিশাল চর খালি পড়ে আছে। অপরিকল্পিত সবজি চাষ চাড়া তেমন কিছুই করা হয়নি এই চরে । তখন তার মাথায় এই এগ্রো ফার্ম তৈরির পরিকল্পনা আসে। বিভিন্ন  দেশ ভ্রমণের অভিজ্ঞতা থেকে বানিজ্যিক আয় আর দেশীয় বিনোদন ও কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে তিনি এই অর্থনৈতিক বিনোদন কেন্দ্র 'নরডিক এগ্রো গার্ডেন ' গড়ে তোলার উদ্যোগ নেন। 

কাওসার আব্দুস সংবাদ সারাবেলাকে আরও জানান, ২০২০ সালে  প্রাথমিকভাবে নিজের জমিসহ ২০  একর জমি ক্রয় করে চারদিকে লেক খোদাই করে মাছের চাষ শুরু করেন ।শুষ্ক মৌসুমে পানির অভাব দেখা দিলে দুটি গভীর নলকূপ খনন করা হয় । মাঝের বিশাল চরে লাগানো হয় সিঙ্গাপুরী আম কাঁঠাল জাম ড্রাগনসহ ৫৮ প্রজাতির দেশী-বিদেশি সবজি ও ফলফ্রুটের গাছ। একটি গরুর খামার। ভুমি ক্রয়, স্থাপনা তৈরী, লেক ও নলকূপ খনন, 

গবাদিপশুর খামার তৈরী সহ অবকাঠামো ও সার্বিক  উন্নয়নে ব্যয় হয়েছে প্রায় অর্ধ কোটি টাকা। আর প্রকল্পে কাজ করছেন ১৫-২০ জন শ্রমিক এমন দাবি ব্যবসায়ী কাওসারের ।

তিনি আরও জানান,  বর্তমানে চলছে নানা জাতের সবজি ও মাছ বিক্রি। মাত্র দেড় বছরে কৃত্রিম  ফিড  ছাড়াই নরডিক এগ্রো গার্ডেনে চাষ করা একেকটি রুই/ কাতল মাছের ওজন ২/৩ কেজি।গত ২ বছরে কয়েক লাখ টাকার দেশী-বিদেশী সবজি মাছ ও ফল বিক্রি করেছেন  ব্যবসায়ী  কাওসার আব্দুস । 

তিনি বলেন এখন আর বাইরে যেতে মন চায় না।মাঝে মাঝে গেলেও চলে আসি তাড়াতাড়ি। নরডিক এগ্রো গার্ডেনকে আমি উন্নত বিশ্বের আদলে একটি অত্যাধুনিক কৃষি ফার্ম পাশাপাশি পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলতে চান তিনি। 

সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মনোরঞ্জন সিংহ বলেন এই ধরনের উদ্যোগ দেশের কৃষি বিল্পবে বড় ভূমিকা রাখবে।   

কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ টি এম ফরহাদ চৌধুরী সংবাদ সারাবেলা কে বলছেন, কাওসার সাহেবের প্রতিষ্ঠানটি আমাকে অভিভূত করেছে। গ্রামেগঞ্জে   এভাবে পতিত জমিতে ব্যক্তি উদ্যোগে কৃষি ফার্ম করা হলে অর্থনৈতিক উন্নয়নের পাশাপাশি পরিবেশের ভারসাম্য ফিরে আসবে।


Sangbad Sarabela

সম্পাদক: আবদুল মজিদ

প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । sangbadsarabela26@gmail.com

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2022 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.