× প্রচ্ছদ জাতীয় সারাদেশ রাজনীতি বিশ্ব খেলা আজকের বিশেষ বাণিজ্য বিনোদন ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই, প্রতিটি ওয়ার্ডে অন্তত একটি খেলার মাঠ চাই

সম্পাদকীয়

৩০ এপ্রিল ২০২২, ২০:৪৬ পিএম

তেঁতুলতলা মাঠ। ছবি: সংগৃহীত

কলাবাগানে খেলার মাঠে থানা স্থাপনের উদ্যোগ থেকে সরে এসেছে সরকার । গতকাল যখন স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে পরিবেশবাদীরাও মাঠ রক্ষার দাবিতে কর্মসূচি পালন করছিলেন, সংবাদ সম্মেলনের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন, তখনই খবর আসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাঠ রক্ষার পক্ষেই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এরপরই প্রতিবাদ কর্মসূচিটি বিজয় উৎসবে রূপ নেয়। মাঠ রক্ষার আন্দোলনে অংশগ্রহণকারী সবাই সমস্বরে ঘোষণা করেন, ‘আমরা করেছি জয় আজকে।’

কলাবাগানে খেলার মাঠে থানা না হওয়ার প্রধানমন্ত্রীর এ সিদ্ধান্তকে আমরা স্বাগত জানাই। এটা কেবল মাঠ রক্ষার দাবিতে আন্দোলনকারীদের জয় নয়, শিশু–কিশোরদের খেলার মাঠ পাওয়ার যে অধিকার আছে, তার স্বীকৃতি। পরিবেশের পক্ষে একটি অবস্থান। উল্লেখ করা প্রয়োজন যে বেশ কিছুদিন ধরে কলাবাগানের তেঁতুলতলা মাঠটি রক্ষার আন্দোলন করছিলেন পরিবেশবিদ ও নগর–পরিকল্পনাবিদদের পাশাপাশি সেখানকার বাসিন্দারা। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) সেখানে থানা স্থাপনের উদ্যোগ নিলে স্থানীয় লোকজন ক্ষোভে ফেটে পড়েন। বড়দের সঙ্গে আন্দোলনে যোগ দেয় শিশু–কিশোরেরাও। তাদের দাবি, ‘আমরা থানা চাই না, খেলার মাঠ ফেরত চাই।’

আন্দোলনকারীরা সিটি করপোরেশনসহ বিভিন্ন সংস্থার কাছে তাদের দাবির যৌক্তিকতা তুলে ধরলেও ইতিবাচক সাড়া পাননি। সরকারের এক সংস্থার ওপর দায় চাপিয়ে নিজেদের দায়িত্ব এড়াতে থাকে। নাগরিক প্রতিবাদের একপর্যায়ে সৈয়দা রত্না নামের এক নারী সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে থানা স্থাপনের উদ্যোগের প্রতিবাদ জানালে পুলিশ তাঁকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পরে তাঁরকিশোর বয়সী সন্তানকেও থানায় নিয়ে যায় এবং মধ্যরাত পর্যন্ত দুজনকে আটকে রাখে। পুলিশের এ আচরণের নিন্দা ও প্রতিবাদ আসে বিভিন্ন মহল থেকে।

সৈয়দা রত্না তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, ‘বিশ্বাস ছিল, প্রধানমন্ত্রীর নজরে এলে মাঠ ফিরে পাব।’

লাগাতার আন্দোলন সত্ত্বেও ডিএমপি থানার ভবন নির্মাণকাজ অব্যাহত রাখে, তারা ইতিমধ্যে জায়গাটি কিনে নিয়েছে এ যুক্তিতে। আন্দোলনকারীদের একটি প্রতিনিধিদল গত বুধবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের সঙ্গে দেখা করে মাঠ রক্ষার দাবি পুনর্ব্যক্ত করেন। একপর্যায়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তাঁদের দাবির বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীকে জানাবেন বলে আশ্বাস দেন। সেই প্রেক্ষাপটেই গতকাল প্রধানমন্ত্রী জানিয়ে দেন তেঁতুলতলা মাঠটি অক্ষুণ্ন থাকবে এবং সেখানে থানা স্থাপন করা হবে না।

এর মাধ্যমে সরকার স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবিই মেনে নেয়নি, প্রতিটি আবাসিক এলাকায় উন্মুক্ত স্থান রাখার প্রয়োজনীয়তাও স্বীকার করে নিল। আমরা মনে করি, প্রতিটি ওয়ার্ডে একাধিক খেলার মাঠ থাকা অপরিহার্য। জানা যায়, ঢাকার ৪১টি ওয়ার্ডে কোনো মাঠ নেই। মাঠ না থাকার অর্থ সেখানকার ছেলেমেয়েদের খেলাধুলার সুযোগ থেকে বঞ্চিত রাখা। তাই সরকারের কাছে আমাদের দাবি থাকবে, প্রতিটি ওয়ার্ডে অন্তত একটি খেলার মাঠ তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হবে।

Sangbad Sarabela

সম্পাদক: আবদুল মজিদ

প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । sangbadsarabela26@gmail.com

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2022 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.