× প্রচ্ছদ জাতীয় সারাদেশ রাজনীতি বিশ্ব খেলা আজকের বিশেষ বাণিজ্য বিনোদন ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

চট্টগ্রাম বন্দর সার্বক্ষণিক সচল রাখতে হবে

সম্পাদকীয়

১১ মে ২০২২, ১৮:১৪ পিএম

প্রতীকী ছবি

দেশের সবচেয়ে বড় বন্দর চট্টগ্রাম বন্দরে জাহাজ ও কনটেইনারের চাপ বেড়েছে। বস্তুত স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় কম পণ্য ডেলিভারি হওয়ার কারণেই এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে জানা যায়। বন্দর পরিস্থিতি যদিও এখন পর্যন্ত বিপজ্জনক পর্যায়ে যায়নি, তবে আশঙ্কার বিয়য় হলো- জাহাজ ও কনটেইনারের সংখ্যা আরও বৃদ্ধি পেলে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া কঠিন হবে।

উল্লেখ্য, ঈদুল ফিতর ও সাপ্তাহিক বন্ধ মিলিয়ে এবার ২৯ এপ্রিল থেকে ৭ মে, টানা ৯ দিন ছুটি ছিল। যদিও এ সময়ে বন্দরের অপারেশনাল কার্যক্রম চালু ছিল; তবে কলকারখানা বন্ধ থাকায় আমদানিকারক ও সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টরা ইয়ার্ড থেকে কনটেইনার ডেলিভারি না নেওয়ায় ইয়ার্ডে আমদানিকৃত কনটেইনারের স্তূপ বৃদ্ধির পাশাপাশি বহির্নোঙরে অপেক্ষমাণ জাহাজের সংখ্যাও বেড়েছে বলে জানা গেছে।

ঈদ জনিত ছুটি ছাড়াও ইকুইপমেন্ট, শ্রমিক ও লোকবল সংকট এবং হরতাল-ধর্মঘটের কারণে চট্টগ্রাম বন্দরের হ্যান্ডলিং বা অপারেশনাল কার্যক্রমে প্রায়ই বিঘ্ন ঘটে থাকে। চট্টগ্রাম বন্দরে সৃষ্ট কনটেইনার জটের কারণে কেবল দেশের আমদানিকারক ও ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হন না, একই সঙ্গে ক্ষতির সম্মুখীন হয় দেশের অর্থনীতিও। এতে বাধাগ্রস্ত হয় উন্নয়ন। এ পরিপ্রেক্ষিতে উদ্ভূত পরিস্থিতি মোকাবিলায় বন্দর কর্তৃপক্ষ ও বন্দর ব্যবহারকারী উভয় পক্ষকেই দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন এবং বাস্তবভিত্তিক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। বন্দর কর্তৃপক্ষ অবশ্য পরিস্থিতি সামাল দিতে হ্যান্ডলিং কার্যক্রম স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনার পাশাপাশি বিভিন্ন পক্ষকে দ্রুত পণ্য ডেলিভারি ও জাহাজ থেকে পণ্য খালাস করার তাগিদ দিচ্ছেন।

বিষয়টির প্রতি আমদানিকারকদেরও গুরুত্ব দেওয়া উচিত। ঈদের দীর্ঘ ছুটিসহ বিশেষ সময়ে যাতে বন্দরের কার্যক্রম পুরোপুরি সচল থাকে, সেজন্য বিকল্প ব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে। বন্দরকেন্দ্রিক জরিপ প্রতিষ্ঠান লয়েডস লিস্ট অনুযায়ী, বিশ্বের ১০০ দ্রুততম বন্দরের তালিকায় চট্টগ্রামের অবস্থান ৫৮তম। এ অগ্রগতি সত্ত্বেও কনটেইনার জট থেকে চট্টগ্রাম বন্দরকে মুক্ত করতে না পারার বিষয়টি ভাবনার বৈকি।

দেশে ব্যবসায়-বাণিজ্যের প্রসার ঘটায় আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ অবস্থায় দেশের প্রধান সমুদ্রবন্দর সার্বক্ষণিকভাবে সচল ও কার্যক্ষম রাখার ওপর সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে হবে। এ লক্ষ্যে সক্ষমতা বৃদ্ধির পাশাপাশি অনিয়ম ও দুর্নীতি রোধসহ ঈদের ছুটি বা কোনো দুর্যোগে চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরের কার্যক্রমে যাতে কোনোরকম ছন্দপতন না ঘটে, তা নিশ্চিত করা জরুরি।

Sangbad Sarabela

সম্পাদক: আবদুল মজিদ

প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । sangbadsarabela26@gmail.com

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2022 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.