× প্রচ্ছদ জাতীয় সারাদেশ রাজনীতি বিশ্ব খেলা আজকের বিশেষ বাণিজ্য বিনোদন ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

রুয়েটে আবারও সক্রিয় ভুঁইফোড় সংগঠন

রাজশাহী ব্যুরো

২৬ মার্চ ২০২২, ১৬:৫০ পিএম । আপডেটঃ ২৬ মার্চ ২০২২, ১৬:৫০ পিএম

বঙ্গবন্ধু কর্মকর্তা সমিতি রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় রুয়েটে কেন্দ্রীয় আ. লীগের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবরের নাম ব্যবহার করে একের পর এক জন্ম হচ্ছে বঙ্গবন্ধু পরিষদ শিক্ষক সমিতি বঙ্গবন্ধু কর্মকর্তা পরিষদ ও বঙ্গবন্ধু অফিসার সমিতি নামের ভুঁইফোর সংগঠন জন্ম হচ্ছে। সেসব সংগঠনগুলোর কেন্দ্রের কোন অনুমোদন নেই।

বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ) অনুমোদনহীন বঙ্গবন্ধু কর্মকর্তা সমিতি নাম ব্যবহার করে একটি ব্যানার রুয়েটের প্রধান ফটকের সামনে লাগানো হয়েছে এবং উক্ত ব্যানারে উল্লেখ করা হয়েছে মহান স্বাধীনতা দিবস ২০২২ ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে ২৬ শে মার্চ শনিবার সন্ধ্যা ৬.৩০ মিনিটে নৃত্য, আবৃতি, গম্ভীরা, সংগীতের আয়োজন করা হয়েছে বঙ্গবন্ধু কর্মকর্তা পরিষদের পক্ষ থেকে।

তবে রুয়েটের একাধিক সূত্র বলছে রুয়েটের অনুমোদনহীন বঙ্গবন্ধু কর্মকর্তা সমিতি নামে কোন সংগঠন উক্ত প্রতিষ্ঠানে কখনও ছিলো না নিয়োগ বাণিজ্য করার লক্ষ্যে এই সংগঠনগুলোর জন্ম হচ্ছে কতিপয় শিক্ষক সমিতির বেশ কিছু ব্যক্তি ও রুয়েটের অসাধু কিছু কর্মকর্তার মাধ্যমে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, এইসব সংগঠনের নেপথ্যে রয়েছেন রুয়েট শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মো. ফারুক হোসেন সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. মো. রবিউল আওয়াল রুয়েট ছাত্র কল্যাণ উপ-পরিচালক মামুনূর রশিদ, প্রকৌশলী হারুনুর রশিদ, রুয়েট ডেপুটি রেজিস্ট্রার ও নগর আ. লীগের প্রচার সম্পাদক দীলিপ কুমার ঘোষ, সহকারী রেজিস্ট্রার মো. রোকনুজ্জামান রোকনসহ আরো কিছু কতিপয় ব্যক্তি ।

রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রুয়েট) ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. রফিকুল ইসলাম শেখের সবচাইতে ঘনিষ্টজন বলে এরা রুয়েটে পরিচিত ।

রুয়েটে কর্মরত শিক্ষক এবং শিক্ষক সমিতির একাধিক নেতার সাথে যোগাযোগ করা হইলে তারা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, উল্লেখিত ব্যক্তিরা রুয়েটে সকল অপকর্মের সাথে জড়িত এবং গত ২০২১ সালের মার্চ মাসে রুয়েটের ইতিহাসে সবচাইতে বড় নিয়োগ হয় এবং এই নিয়োগের পুরাটাই নিয়ন্ত্রণ হয় এই সকল ব্যক্তিদের হাত দিয়ে। রুয়েটের ৯২তম সিন্ডিকেটে চাকুরি পাওয়ার তালিকায় রয়েছেন উপরোক্ত ব্যক্তিদের ভাই, ভাগিনা, ভাতিজাসহ নিকট স্বজনেরা।

রুয়েটের সাবেক শিক্ষক নেতারা জানান, রুয়েট কর্তৃপক্ষ ২০২২ সালের জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারী মাসে আরো দুইটি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছেন আর এই নিয়োগেরও পুরাটাই নিয়ন্ত্রণ নিতে এবং রুয়েটে কর্মরত শিক্ষক ও অফিসারদের মাঝে একটি গ্রুপিং সৃষ্টি করার জন্য বঙ্গবন্ধু কর্মকর্তা সমিতি নামের ভুঁইফোড় সংগঠনটি আবারো সক্রিয় হচ্ছে।

ভুঁইফোর সংগঠন বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মের ব্যাপারে আমাদের কোনো দ্বিমত নেই। কিন্তু লীগ আর আওয়ামী যখন যুক্ত হয় তখন এখানে আমাদের সংশ্লিষ্টতা এসে যায়। এখানে আমাদের ভাবমূর্তির বিষয়টা এসে যায়, কারণ এই সব দোকান অনেকে খুলে থাকে চাঁদাবাজির জন্য, এগুলো আসলে চাঁদাবাজির একটি প্রতিষ্ঠান।

নাম না প্রকাশ করার শর্তে মহানগর আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল নেতারা বলেন, এ ধরেনের কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি আছে, এরা চাঁদাবাজি ওপর নির্ভর। এরা দলের নাম ভাঙ্গায়। কাজেই এই সব সংগঠনের কোনো প্রকার আয়োজনে, বৈঠকে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী হোক যেটাই হোক, আমি আমাদের নেতাদের আহ্বান জানাই, আপনারা কোনো অবস্থাতেই এই সব সংগঠনের সভায় আনুষ্ঠানিকভাবে উপস্থিত থাকবেন না।

আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্র অনুসারে দলটির মোট আটটি সহযোগী ও দুটি ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন রয়েছে। সহযোগী সংগঠনগুলো হলো যুবলীগ, কৃষক লীগ, তাঁতী লীগ, যুব মহিলা লীগ, মহিলা লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও আওয়ামী লীগ আইনজীবী পরিষদ ও মৎস্যজীবী লীগ। আর ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন দুটি হলো ছাত্রলীগ ও শ্রমিক লীগ। বঙ্গবন্ধু কর্মকর্তা পরিষদ নামে কোন সংগঠন নেই দলটির । রুয়েটে বঙ্গবন্ধু কর্মকর্তা পরিষদ নামে ভুঁইফোড় সংগঠন।

নাম না প্রকাশ করার শর্তে মহানগর আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল এক নেতা বলেন, আমরা রুয়েটে একের পর এক ভুঁইফোড় সংগঠনের জন্ম এবং তাদের এই সকল অপকর্মে আমরা মর্মাহিত।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ আ. লীগ রাজশাহী মহানগরের একটি গুরুত্ব পূর্ণ পদে থেকে দীলিপ কুমার ঘোঁষের এই সকল কাজ করা এবং এই সকল কাজকে সমর্থন দেওয়া খুবই লজ্জাজনক বিষয়, এতে করে রাজশাহীর মানুষের কাঁছে আমাদের ও দলের ইমেজ নষ্ঠ হচ্ছে ।

রুয়েটে একের পর এক ভুঁইফোড় সংগঠন এ বিষয়ে রুয়েট ভাইস চ্যান্সেলরের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হইলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

ভুঁইফোড় সংগঠন বিষয়ে কথা বলতে রাজশাহী নগর আ. লীগের প্রচার সম্পাদক ও রুয়েটের ডেপুটি রেজিস্ট্রার দীলিপ কুমার ঘোষের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান এবং ফোনটি কেঁটে দেন ।

Sangbad Sarabela

সম্পাদক: আবদুল মজিদ

প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । sangbadsarabela26@gmail.com

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2022 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.