× প্রচ্ছদ জাতীয় সারাদেশ রাজনীতি বিশ্ব খেলা আজকের বিশেষ বাণিজ্য বিনোদন ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

মারিওপোলের গণকবরের খবর ভুয়া!

০১ মে ২০২২, ১২:০৮ পিএম

মারিওপোলে গণকবর পাওয়া নিয়ে পশ্চিমা মিডিয়ার খবর আলোচিত বিশ্বে। তাই এই দাবি যাচাই করতে ঘটনাস্থলে সরেজমিনে হাজির হন কানাডিয়ান সাংবাদিক ইভা বার্টলেট। ঘটনাস্থল পর্যবেক্ষণ করে তিনি জানিয়েছেন মিডিয়াতে দেওয়া তথ্য অনুসারে সেখানে কোনো গণকবর নেই।

সম্প্রতি পশ্চিম ইউক্রেনের একটি শহরের ৯ হাজার ইউক্রেনীয় বেসামরিককে গণকবর দিয়েছে রুশ বাহিনী, এমন খবরে পশ্চিমা মিডিয়াতে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। মিডিয়াগুলি তথ্যের সত্যতা প্রমাণে কিছু স্যাটেলাইট ছবি আর কিয়েভের প্রতি অনুগত কিছু কর্মকর্তার উদ্বৃতি ব্যবহার করেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, রাশিয়ানরা এপ্রিল মাস জুড়ে পরিখা খনন করেছে এবং স্তরে স্তরে মৃতদেহ দিয়ে সেগুলো প্রতিদিন পূর্ণ করেছে।

ইভা বলেন, আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম এবং কোন গণকবর পাইনি। ২৩শে এপ্রিল আমি আরটি’র সাংবাদিক রোমান কোসারেভের সঙ্গে মাঙ্গুশ শহরের অবস্থা পরিদর্শনে গিয়েছিলাম। সেখানে আমি নতুন, সুশৃঙ্খল কবরের প্লট দেখতে পেয়েছি যার মধ্যে কিছু এখনও খালি রয়েছে। ঘটনাস্থলটি আগে থেকেই কবরস্থান হিসেবে ব্যবহার হয়ে আসছিল। কেননা সেখানে মৃতদের নাম ও জন্ম তারিখ লেখা প্ল্যাকার্ড ছিল। কিছু প্লটে দাফন করার ক্রমানুসারে নাম্বার বসানো ছিল।

সকল মিডিয়া একই উৎস থেকে খবর সংগ্রহ করে কপি পেস্ট করেছে। তারা সকলেই মারিওপোলের প্রাক্তন মেয়র ভাদিম বোইচেঙ্কোর উদ্বৃতি ব্যবহার করেছে।

উদাহরণস্বরুপ ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে বোইচেঙ্কোর বরাত দিয়ে বলা হয়, ‘নতুন বেবিন ইয়ার’ নামে পরিচিত কিয়েভের উপকণ্ঠে অবস্থিত ইউরোপের বৃহত্তম গণকবর যেখানে ১৯৪১ সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় নাৎসিরা ৩৩ হাজার ইহুদিকে দাফন করেছে। তারই প্রতিফলন ঘটাচ্ছে রুশ সেনারা।

বোইচেঙ্কোর আরেকটি উদ্বেগজনক দাবি ছিল, কথিত গণকবরটি ২১ শতকের মধ্যে সবচেয়ে বড় যুদ্ধাপরাধ।

কিন্তু ইভার অনুসন্ধান বলছে, প্রকৃতপক্ষে ঘটনাস্থলে চারশত পৃথক প্লট রয়েছে। এদের মধ্যে ১০০টি খালি রয়েছে। কিন্তু ৯ হাজার মৃতদেহ আর ২১ শতকের সবচেয়ে বড় যুদ্ধাপরাধের খবর ছিল শহর ছেড়ে পালানো মেয়রের অপ্রমাণিত দাবি। মিডিয়াগুলো এই প্রতিবেদন প্রকাশ করে নিচে লিখে দিয়েছিল, আমরা মেয়রের দাবিগুলোর সত্যতা স্বাধীনভাবে যাচাই করতে পারিনি।

কবর খুঁড়ে সত্যতা যাচাই করে ইভা বলেন, ঘটনাস্থলের চারপাশে হাঁটার সময় কবরস্থান সংশ্লিষ্ট দুই ব্যক্তি এসেছিলেন। প্রাক্তন মেয়রের গণকবরের অভিযোগটি তারা কঠোরভাবে প্রত্যাখ্যান করেছেন। তাদের মধ্যে একজন বলেন, এটি কোন গণকবর নয় এবং এখানে কেউ একটি গর্তে লাশ ফেলছে না।



Sangbad Sarabela

সম্পাদক: আবদুল মজিদ

প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । sangbadsarabela26@gmail.com

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2022 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.