× প্রচ্ছদ জাতীয় সারাদেশ রাজনীতি বিশ্ব খেলা আজকের বিশেষ বাণিজ্য বিনোদন ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

ভারতীয় রাজনীতির ‘কালারফুল বয়’

পরমেশ্বর রায় অয়ন

০৯ মে ২০২২, ১১:৪১ এএম

মদন মিত্র

ভারতের সবচেয়ে জনপ্রিয় তিনটি পেশা হচ্ছে-রাজনীতি, ক্রিকেট আর অভিনয়। কেউ যদি মোটা অঙ্কের অর্থ উপার্জন করতে চায় কিংবা বিখ্যাত হতে চায়, তাকে এই তিনটি পেশার যেকোন একটি গ্রহণ করতে হবে। অবশ্য ভারত আইটি সেক্টরে আন্তর্জাতিকভাবে বেশ সুনাম অর্জন করেছে। সিলিকন ভ্যালির বড় বড় প্রযুক্তি কোম্পানিগুলোর শীর্ষকর্তা হচ্ছেন ভারতীয়। তবে দেশটা যেহেতু পৃথিবীর বৃহত্তম গণতন্ত্রের, সেখানে রাজনীতি নিয়ে সবচেয়ে বেশি মাতামাতি হবে-এটাই তো স্বাভাবিক।

ভারতের রাজনীতিবিদরা নানা কারণে আলোচনায় আসেন। তবে পশ্চিমবঙ্গের তৃনমূল বিধায়ক মদন মিত্র প্রায় সময় খবরের শিরোনাম হন বিতর্কের কারণে। অবশ্য না হবেনই বা কেন? মদন মিত্র আর বিতর্ক যে হাত ধরাধরি করে চলে।

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মদন মিত্রকে বলেন,‘কালারফুল বয়’। এই বয়সেও তিনি চালচলন আর পোশাকে যেভাবে নজর কাড়েন , ‘কালারফুল বয়’ ছাড়া তাকে আর কী বা বলা যেতে পারে!

গণমাধ্যমের সামনে বিতর্কিত মন্তব্য, গানে উদ্দাম নৃত্য, নায়িকাদের সাথে জলকেলি, নানা ঢঙ্গে কবিতা পাঠ-কী করেন নি মদন মিত্র! নিজের একটা বায়োপিক তৈরি করে সেখানে নাকি অভিনয়ও করবেন তিনি! পথের পাঁচালীর জন্য সত্যজিত রায়ের পুরস্কার নিয়ে দেশে ফেরার সময়কার স্মৃতি নিয়েও কাজ করতে চান মদন। এনিয়ে সত্যজিত ভক্তরা বেজায় ক্ষুব্ধ। 

গত বছরের বিধানসভা ভোটের আগে দলের হয়ে প্রচারে বেরিয়ে গানের ভিডিয়ো তৈরি করেছিলেন এই তৃণমূল বিধায়ক। তার পর পুজোয় গানের ভিডিয়ো করেছেন। কিছু দিন আগে বিজেপি নেতা রুদ্রনীল ঘোষের কবিতার প্রেক্ষিতে পাল্টা ‘নীল গিরিগিটি’ কবিতা লিখে কটাক্ষ করেছেন কামারহাটির বিধায়ক। আবার নতুন গানের ভিডিয়ো নিয়ে হাজির মদন মিত্র। গানের নাম ‘ওহ্ লাভলি-২’। গানের কলি এ রকম, ‘মদন দাদার নেই যে তুলনা/তেরে নারে না রে না রে না, মদন দাদার নেই যে তুলনা।’ আবার আর এক জায়গায় রয়েছে, ‘বাতাসে রং লেগেছে/সবুজ আবিরে চার দিক ঢেকে গিয়েছে।’ এই গান নিয়ে মদন বলছেন, ‘সত্যিই যাঁরা তৃণমূলের সৈনিক, তাঁরা কাউকে পরোয়া করেন না। বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি শার্লক হোমস্ থেকে ফেলুদার থ্রিলারকেও হার মানিয়ে দিচ্ছে। সকালে এক চিত্র, বিকেলে আর এক।’’

তার পর বিজেপিকে কটাক্ষ করে বলেন, ‘‘ওরা ২৪, ২৪ করছেন। ২৪ ওল্টালে ৪২ হয় (রাজ্যের মোট লোকসভা কেন্দ্র)। কে কোন দল তৈরি করছে, কোন দল ভেঙে যাচ্ছে... আমরা যারা কর্মী তারা শুধু জানি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আবার মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন। দিল্লির লড়াইটা হবে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে।’’

 আবার সুইমিং পুলে জলকেলি করতে করতে ফেসবুক লাইভে আসেন মদন। এসময় তিনি বলেন ‘বিজ্ঞানীরা জ্ঞানসমুদ্রের তীরে নুড়ি কুড়োনোর কথা বলতেন। কিন্তু ক্যাবিনেট মন্ত্রী থেকে দলের সর্বভারতীয় যুব তৃণমূলের প্রেসিডেন্ট হওয়া সত্ত্বেও রাজনৈতিক সমুদ্রের কূলে নুড়ি কুড়োতে পারিনি।’

রাজনীতির তীরে নুড়ি কুড়োতে না পেরে সুইমিং পুলেই নুড়ি কুড়োতে নেমেছেন বলেও মদন মন্তব্য করেন। আর সংবাদমাধ্যমের উদ্দেশে বলেন, ‘দয়া করে আমাকে প্রেস করবেন না। অযথা আমাকে বিরক্তও করবেন না।’

বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের জন্য প্রায়শই দলনেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের রোষের মুখে পড়েন তিনি। কিন্তু আলোচিত কোনো ঘটনা ঘটবে আর মদন চুপ করে থাকবেন, তা হয় কী করে? 

মদন মিত্র ১৯৫৪ সালের ৩ ডিসেম্বর কলকাতার ভবানীপুরের এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহন করেন। ১৯৯৮ সালে প্রতিষ্ঠিত তৃণমূল কংগ্রেসে তিনি  যোগ দেন। এর আগে অবশ্য কংগ্রেস করতেন এই রঙ্গিন রাজনীতিবিদ।



Sangbad Sarabela

সম্পাদক: আবদুল মজিদ

প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । sangbadsarabela26@gmail.com

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2022 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.