× প্রচ্ছদ জাতীয় সারাদেশ রাজনীতি বিশ্ব খেলা আজকের বিশেষ বাণিজ্য বিনোদন ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

বুধবার নাগাদ অন্ধ্রপ্রদেশে আঘাত হানতে পারে আসানি

নিজস্ব প্রতিবেদক

১১ মে ২০২২, ০১:৫২ এএম

ফাইল ছবি

ঘূর্ণিঝড় আসানি বুধবার (১১ মে) সকালে ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশে আঘাত হানতে পারে। তবে এটি বাঁক খেয়ে ফের সাগরে নেমে এসে শক্তি হারাবে।

আর পুরোটা সময়জুড়ে দেশে ঝরাবে ভারী বর্ষণ। বাংলাদেশ ও ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তর এমন পূর্বাভাস দিয়েছে।

ভারতের আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, আসানি অন্ধ্র প্রদেশের কাকিনাড়া ও বিশাখাপত্তনমে আঘাত হানতে পারে বুধবার (১১ মে) ভোরে। এরপর সকালেই এটি দুর্বল হয়ে প্রবল ঘূর্ণিঝড় থেকে ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়ে সাগরে নেমে আসতে পারে। পরবর্তীতে অন্ধ্র উপকূল ঘেঁষে উত্তর-পূর্বদিকে বাঁক নিয়ে গভীর নিম্নচাপে রূপ নেবে বৃহস্পতিবার (১২ মে) সকালে। ওই দিন রাতেই আরো শক্তিক্ষয় করে আসানি রূপ নেবে নিম্নচাপে। এরপর ধীরে ধীরে গুরুত্বহীন হয়ে পড়বে।

পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশ উপকূলে সরাসরি আঘাত হানার কোনো শঙ্কা না থাকলেও প্রভাব থাকবে। দেশে ঝড়ো হাওয়াসহ ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির সাথে বজ্রসহ বৃষ্টিপাত হতে পারে আগামী শনিবার পর্যন্ত।

আবহাওয়াবিদ মো. বজলুর রশিদ জানিয়েছেন, ঘূর্ণিঝড় আসানি মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ১২০৫ কি.মি. দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ১১২৫ কি.মি. দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ১১৮৫ কি.মি. দক্ষিণে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ১১৪৫ কি.মি. দক্ষিণে অবস্থান করছিল। এটি আরও ঘনীভূত হয়ে উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।

ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কি.মি., যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৮৮ কি.মি. পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের নিকটবর্তী এলাকায় সাগর বিক্ষুব্ধ রয়েছে।


এ অবস্থায় চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরগুলোকে দুই নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। সেই সঙ্গে তাদের গভীর সাগরে বিচরণ না করতে বলা হয়েছে।

অন্যদিকে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব দেশের দক্ষিণাঞ্চলে ভারী থেকে অতিভারী বর্ষণ শুরু হয়েছে। এছাড়া রাজধানীসহ দেশের অন্যন্য স্থানেও হালকা থেকে মাঝারি ধরনের ভারী বর্ষণ হচ্ছে। ঢাকায় বিকেল ৩টা পর্যন্ত ১৩ মিলিমিটার বর্ষণ হয়েছে। আর এই সময়ে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে তাড়াশে, ৫৭ মিলিমিটার।

Sangbad Sarabela

সম্পাদক: আবদুল মজিদ

প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । sangbadsarabela26@gmail.com

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2022 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.