× প্রচ্ছদ বাংলাদেশ বিশ্ব রাজনীতি খেলা বিনোদন বাণিজ্য লাইফ স্টাইল ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

কাতার ফুটবল বিশ্বকাপ কাউন্টডাউন: আর বাকি ২ দিন

মশিউর অর্ণব

১৮ নভেম্বর ২০২২, ২১:২৩ পিএম

দুয়ারে কড়া নাড়ছে কাতার বিশ্বকাপ, ‘গ্রেটেস্ট শো অন দ্যা আর্থ’ এর আর বাকি আছে মাত্র ২ দিন। বিশ্বকাপ শুরুর আগে প্রতিদিনই সংবাদ সারাবেলা’য় থাকছে ফিফা র্যাংকিংয়ের শীর্ষে থাকা দেশগুলোর দল পরিচিতি, পূর্বের বিশ্বকাপ আসরগুলোর ফ্ল্যাশব্যাকসহ ফুটবল নিয়ে নানা খুঁটিনাটি।

আজকের পর্বে থাকছে ২০০২ বিশ্বকাপের ফ্ল্যাশব্যাক-

২০০২ সালের ৩১ মে থকে ৩০  জুন পর্যন্ত অনুষ্ঠিত টুর্নামেন্টের প্রথম রাউন্ড থেকে বিদায় নেয় গত আসরের চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স। সেই মৌসুমে ইউরোপের সেরা পাঁচ লিগের তিনটির শীর্ষ গোলদাতা ছিল দলে, তবুও কোনো গোল দিতে পারেনি ফ্রান্স! দ্বিতীয় ফেভারিট আর্জেন্টিনাও বিদায় নেয় গ্রুপ পর্বেই। একই পরিণতি হয় উরুগুয়ে ও পর্তুগালের। এই আসর দিয়েই সমাপ্তি ঘটে আগের আসরের চ্যাম্পিয়ন দলের সরাসরি খেলা এবং ‘গোল্ডেন গোল’ নিয়মের। 

শেষ ষোলোয় মুখোমুখি হয়: জার্মানি-প্যারাগুয়ে, ইংল্যান্ড-ডেনমার্ক, সেনেগাল-সুইডেন, স্পেন-আয়ারল্যান্ড, যুক্তরাষ্ট্র-মেক্সিকো, ব্রাজিল-বেলজিয়াম, জাপান-তুরস্ক ও দক্ষিণ কোরিয়া-ইতালি। 

প্রথম ম্যাচে ৮৮তম মিনিটে গোলে প্যারাগুয়েকে হারায় জার্মানি। দিনের পরের ম্যাচে ডেনমার্কের বিপক্ষে ৩-০ গোলে জেতে ইংল্যান্ড। 

পরদিন অতিরিক্ত সময়ে গড়ানো প্রথম ম্যাচে ২-১ ব্যবধানে জেতে সেনেগাল। দিনের অন্য ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। অষ্টম মিনিটে এগিয়ে যায় স্পেন। সফল স্পট কিকে ৯০তম মিনিটে সমতা ফেরায় আয়ারল্যান্ড। টাইব্রেকারে আর পারেনি তারা, হেরে যায় ৩-২ ব্যবধানে। 

১৭ জুন মহাদেশীয় প্রতিপক্ষ মেক্সিকোকে ২-০ গোলে হারায় যুক্তরাষ্ট্র। রিভালদো ও রোনালদোর গোলে একই ব্যবধানে বেলজিয়ামের বিপক্ষে জেতে ব্রাজিল। 

পরদিন জাপানকে ১-০ গোলে হারায় তুরস্ক। দিনের অন্য ম্যাচে ১৮তম মিনিটে এগিয়ে যায় ইতালি। ৮৮তম মিনিটে সমতা ফেরায় দক্ষিণ কোরিয়া। পরে ১১৭তম মিনিটে গোল্ডেন গোলে ইতালিকে বিদায় করে দেয় তারা।   

শেষ আটে মুখোমুখি হয়: ব্রাজিল-ইংল্যান্ড, জার্মানি-যুক্তরাষ্ট্র, স্পেন-দক্ষিণ কোরিয়া ও তুরস্ক-সেনেগাল। 

২১ জুন সেমি-ফাইনালে যাওয়ার লড়াইয়ে নামে দুই সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড ও ব্রাজিল। ২৩তম মিনিটে ইংল্যান্ডকে এগিয়ে নেন মাইকেল ওয়েন। প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে সমতা ফেরান রিভালদো। দ্বিতীয়ার্ধের শুরু ব্রাজিলকে এগিয়ে নেন রোনালদিনিয়ো। সেই গোলেই শেষ চারে যায় ব্রাজিল। দিনের অন্য ম্যাচে মাইকেল বালাকের একমাত্র গোলে যুক্তরাষ্ট্রকে হারায় জার্মানি। 

পরদিন স্পেনকে টাইব্রেকারে ৫-৩ গোলে জিতে এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে সেমি-ফাইনালে যায় দক্ষিণ কোরিয়া। দিনের অন্য ম্যাচে সেনেগালকে ১-০ গোলে হারায় তুরস্ক। নির্ধারিত ৯০ মিনিটে গোল পায়নি কোনো দলই। ৯৪তম মিনিটে গোল্ডেন গোলে ব্যবধান গড়ে দেন ইলহান মানসিজ।  

প্রথম সেমিফাইনালে ২৫ জুন সিউলে মুখোমুখি হয় জার্মানি ও দক্ষিণ কোরিয়া। স্বাগতিকদের স্বপ্ন যাত্রা থামান বালাক। তার ৭৫তম মিনিটের গোলে ফাইনালে যায় জার্মানি।    

পরদিন একই ব্যবধানে তুরস্ককে হারায় ব্রাজিল। ৪৯তম মিনিটে ব্যবধান গড়ে দেওয়া গোলটি করেন রোনালদো। ইতিহাসের মাত্র দ্বিতীয় দল হিসেবে টানা তৃতীয়বার ফাইনালে যায় ব্রাজিল। 

ফাইনাল

ফাইনালের দুটি টিমই বিশ্বকাপ আসরের সেরা দুই দল। দুই দলেরই এটি সপ্তম ফাইনাল। মজার ব্যাপার হচ্ছে, প্রথমবারের মতো ফাইনালে মুখোমুখি হচ্ছিলো দুই দল। দুইদলই নিঃসন্দেহে আসরের সেরা দল। একদিকে ব্রাজিলের ঐতিহ্যবাহী সুন্দর ফুটবল অন্যদিকে জার্মানির যান্ত্রিক গতিশীল ক্লিনিকাল ফুটবল। পুরো ফুটবল বিশ্ব অপেক্ষা করছিলো এই ক্লাসিক লড়াই দেখার জন্য। একদিকে আসরে ৬ গোল দেয়া রোনালদো অন্যদিকে ৫ গোল দেয়া ক্রুস। একদিকে রিভালদো, রোনালদিনহো দের নিয়ে গড়া সেরা এটাক অন্যদিকে একাই গোলবার সামলে রাখা অলিভার কান। উত্তেজনার পারদ যেন উচ্চতার সীমা ভঙ্গ করতে চাচ্ছিল।

ম্যাচ শুরু হল যথারীতি। ব্রাজিলের মূল তারকা রোনালদো হতাশ করল সবাইকে। প্রথমার্ধে তিন টি সুযোগ পেয়ে একটিও কাজে লাগাতে পারেননি। ডি বক্সের বাইরে থেকে ক্লেবারসনের বাঁকানো শট অলিভার কানকে পরাস্ত করলেও হেরে যায় বার পোস্টের কাছে। সব সুযোগ কাজে লাগাতে পারলে হয়তো প্রথমার্ধেই খেলা নিজেদের দখলে নিয়ে নিতে পারতো ব্রাজিল। দ্বিতীয়ার্ধে ৪৯ মিনিটে ৩৫ গজ দূরে ফ্রি কিক পায় জার্মানি। ন্যেবুলের বুলেট গতির সেই ফ্রি কিক ফিরে আসে বার পোস্টে লেগে। শুধু ফ্রি কিক নয়, মনে হচ্ছিলো জার্মানির বিশ্বকাপ স্বপ্ন ফিরে এলো বারপোস্টে আঘাত পেয়ে। 

ম্যাচের ৬৭ মিনিটে ডি বক্সের বাইরে থেকে জোরাল শট নেন রিভালদো। তার সেই শট প্রতিহত করেন অলিভার কান, কিন্তু রিবাউন্সে বল পেয়ে যান রোনালদো। বল জালে জড়াতে এক মুহূর্তও দেরী করলেন না। ১-০ তে এগিয়ে যায় ব্রাজিল। বিশ্বসেরা গোলকিপারের বুক থেকে বল ছুটে যাবে ভাবতেও পারেনি কেউ। গোল শোধ দেয়ার জন্য মরিয়া হয়ে যায় জার্মানি। তাদের কয়েকবার প্রতিহত করেন ব্রাজিলের গোলরক্ষক মার্কোস। ৭৯ মিনিটে ডান প্রান্ত থেকে কাট ইন করে ঢুকে রিভালদো কে পাস দেন ক্লেবারসন। রিভালদো স্টেপ ওভার করে বল দিয়ে দেন রোনালদো কে। ফাকায় দাঁড়িয়ে থাকা রোনালদোর ডান পায়ের শট অলিভার কান কে ফাকি দিয়ে জড়িয়ে যায় জালে। ২-০। পুরো ব্রাজিল জাতি উল্লাসে ফেটে উঠে। এই গোলগুলো করতে না পারলে হয়তো রোনালদোর বুকটা ভারি হয়ে থাকতো সারাজীবন। পঞ্চম বিশ্বকাপ শিরোপা থেকে মাত্র ১১ মিনিটের দূরত্বে ছিল ব্রাজিল। শেষ এগারো মিনিটে গোল শোধ দেয়ার চেষ্টা করেও পারেনি জার্মানি। ফুলটাইম। ব্রাজিল ২- জার্মানি ০।

ব্রাজিলের পতাকা গায়ে জড়িয়ে মাঠে উদযাপনে মেতে উঠেন রোনালদোরা। অন্যদিকে পৃথিবীর সবচেয়ে একাকী মানুষের মতো গোলবারের নিচে দাঁড়িয়ে ছিলেন অলিভার কান। ফুটবল কখনো কখনো খুব নিষ্ঠুর।



Sangbad Sarabela

সম্পাদক: আবদুল মজিদ

প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । sangbadsarabela26@gmail.com, বিজ্ঞাপন: 01894-944204

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2022 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.