× প্রচ্ছদ বাংলাদেশ বিশ্ব রাজনীতি খেলা বিনোদন বাণিজ্য লাইফ স্টাইল ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

এল দিয়াগো: “মনে রেখো কেবল একজন ছিল”

ম্যারাডোনার দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী আজ

মশিউর অর্ণব

২৫ নভেম্বর ২০২২, ১৬:০৫ পিএম

পৃথিবীজুড়ে চলছে বিশ্বকাপ উন্মাদনা। বাংলাদেশে এই উন্মাদনার মূল কেন্দ্রবিন্দুতে আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল থাকলেও তার পাশাপাশি পর্তুগাল, জার্মানি, স্পেন, ফ্রান্সসহ আরো কয়েকটি দেশের ফুটবল ভক্তও বাংলাদেশে বিদ্যমান। কাতার বিশ্বকাপের এই মৌসুমে সংবাদ সারাবেলা’র পাঠকদের জন্য থাকছে বিশেষ আয়োজন। চলমান বিশ্বকাপ ফুটবলের মাসজুড়েই থাকছে প্রিয় দলের প্রিয় তারকার পরিচিতি, সাবেক কিংবদন্তিদের স্মৃতিচারণ, বর্ণাঢ্য ও বিচিত্র ফুটবল ক্যারিয়ারসহ ফুটবল নিয়ে ব্যতিক্রমী নানা খবর। 

আজকের পর্বে থাকছে ‘আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি’ ডিয়াগো ম্যারাডোনাকে নিয়ে স্মৃতিচারণ-

২৫ নভেম্বর, ম্যারাডোনার চলে যাওয়ার দুই বছর আজ। ঠিক যার জন্য বাংলাদেশের আকাশে প্রতিবছর ওড়ে আকাশী-সাদা পতাকা, সেই তিনিই যে নেই। ‘মিস ইউ ম্যারাডোনা'...

মাঠে জমজমাট খেলা, উন্মাদ দর্শক আর সাবেকদের বিশ্লেষণ, ভবিষ্যদ্বাণী- এসব মিলিয়ে পৃথিবীর অসুখবিসুখ যা-ই হোক না কেন, বিশ্বকাপের আমেজ ঠিকই উপচে পড়েছে যুগ যুগ ধরে। কিন্তু এবারের বাতাসটা একটু আলাদা। উৎসবের আবির-মাখা সে বাতাসেও কাকে যেন হারানোর বিউগল বাজছে। আর কাতার বিশ্বকাপ তার মধ্যেই দরজায় কড়া নাড়ছে। খিড়কি খুলে সবাই মধ্যপ্রাচ্যে প্রথম বিশ্বকাপকে বরণও করে নিচ্ছেন। শুধু একটি দরজা বন্ধ। তা আর কখনোই খুলবে না। সে এমন এক দরজা- যার চৌকাঠে ফুটবলের ভক্ত থেকে বিপ্লবী, এমনকি দুনিয়ার সবচেয়ে খারাপ মানুষটিও হয়তো পড়ে থাকতে চাইবেন। আর তিনি হয়তো দরজা খুলে সেই পোড়ামুখোকে বুকে টেনে হাতে বলটা দিয়ে বলবেন, এই নাও ওষুধ! পৃথিবীর সমস্ত জরা-ব্যাধি, দুঃখ-শোক আর পাপ-তাপ ভোলার ওষুধ! এই দৃশ্যপট আসলে কল্পনার। 

কিন্তু কল্পনায় তাঁকে নিয়ে এই ছবিটা আঁকার সাহস তিনি নিজেই দিয়েছেন। ফুটবল নিয়ে যাঁর আবেগের উচ্চতা এভারেস্টকেও পেছনে ফেলবে, যাঁর চোখে বলে লাথি মারাটাই জন্ম নেওয়ার সার্থকতা আর পৃথিবীর আপামর দুঃখী জনতার পাশে দাঁড়িয়ে যিনি অহর্নিশ ‘এস্টাবলিশমেন্ট’কে প্রশ্ন করে গেছেন, খুঁচিয়েছেন- সেই দরজায় যে আজ মৃত্যুর তালা! ২০২০ সালে বুয়েনোস আইরেসের হাসপাতালের আইসোলেশনে থেকে ৬০তম জন্মদিন পালন করেন ‘এল দিয়াগো’। তবে কে জানত, তার এক মাসের মধ্যেই না-ফেরার দেশে পাড়ি জমাবেন বিশ্বকাপজয়ী এ কিংবদন্তি। ২০২০ সালের ২৫ নভেম্বর মাত্র ৬০ বছর বয়সে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান ম্যারাডোনা। 

অথচ, বিশ্বকাপ ফুটবল কিংবা আর্জেন্টিনার খেলা মানেই গ্যালারিতে ম্যারাডোনার সরব উপস্থিতি। এটা নিয়মিত দৃশ্য। মাঠে যে যতই প্রেরণা দিক, গ্যালারিতে ম্যারাডোনা গলা ফাটাচ্ছেন- এটাই যেন আর্জেন্টিনার ফুটবলারদের জন্য অনেক বড় এক অনুপ্রেরণার নাম। ২০১৪ এবং ২০১৮ বিশ্বকাপেও ছিলেন গ্যালারিতে। আর্জেন্টিনার প্রতিটি খেলা তিনি মাতিয়ে রাখতেন গ্যালারি থেকে। ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে মাস্ট উইন ম্যাচে তিনি এতটাই উত্তেজিত হয়ে যান যে, দুই পাশে দুজন তাকে ধরে রেখেছিলেন- এই বুঝি তিনি হার্ট অ্যাটাক করেন, এমন অবস্থা। 

১৯৬০ সালে তার জন্মের আগে হয়েছে ৬টি বিশ্বকাপ। ‘এল পিবে দে ওরো (গোল্ডেন বয়)’, এই বিশ্ব-সংসারে আসার পর আরও ১৫টি বিশ্বকাপ হয়েছে। ১৯৮২ বিশ্বকাপ থেকে হিসেব করলে এ পর্যন্ত ১০টি বিশ্বকাপে সবকিছু ঠিকই ছিল। প্রতিটি বিশ্বকাপে তিনি ছিলেন অন্যতম আলোচনার বিষয়। কখনো মাঠে, কখনো ডাগ আউটে বা কখনো গ্যালারিতে। কিন্তু ২০২২ বিশ্বকাপে তাকে কোথাও দেখা যাবে না। ১৯৬০ সালের (এই সালে তার জন্ম) যতগুলো বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে, তিনি ছিলেন পৃথিবীতে। ১৯৭৮ বিশ্বকাপে নিজ দেশে বিশ্বকাপ জিতেছিলেন মারিও ক্যাম্পেসরা। বিতর্কিত হলেও ম্যারাডোনা গলা ফাটাতে পেরেছিলেন তরুণ বয়সে। পরেরবার পরিণত হয়েই বিশ্বকাপ মাতাতে আসেন। এর পরের ইতিহাস তো সবারই জানা। ৬০টি বছর ম্যারাডোনাময় ছিল বিশ্ব ফুটবল। যেভাবেই হোক তার শারীরিক উপস্থিতি ছিল ফুটবলে। 

তিনি নেই দুই বছর হয়ে গেলো। দিনটি ভুলে যেতে চাইলেও যে দেবেনা এবারের বিশ্বকাপ! থাকলে হয়তো কাতারের লুসাইল স্টেডিয়ামের একটি আসন নির্দিষ্ট হতো তার জন্য। হয়তো মেসিরা মাঠ থেকে অনুপ্রেরণা নিতেন, গ্যালারিতে আনন্দ-উল্লাসে বিভোর থাকা কিংবা খারাপ খেললে হতাশায় মুষড়ে যাওয়া ম্যারাডোনা দেখে। কিন্তু দু’বছর হয়ে গেলো ম্যারাডোনা নেই। হয়তো ওপারে বসে তিনি খেলা দেখবেন। হয়তো উত্তেজিত হবেন মেসিদের ব্যর্থতায়, আনন্দিত হবেন অনুজদের সাফল্যে। হাজার কিলোমিটার দূরে, এই বাংলাদেশ থেকে আমরা মিস করব ফুটবল জাদুকরকে। 

সম্প্রতি ম্যারাডোনা কন্যা এক ভিডিওর মাধ্যমে মেসির আর্জেন্টিনাকে এই বার্তা পাঠিয়েছেন। যেখানে দালমা ম্যারাডোনা বলেছেন, ‘মনে রেখো, আমার বাবা কিন্তু তোমাদের সঙ্গেই রয়েছেন। ধরে নিতে পার, তিনিই এ দলের দ্বাদশ সদস্য। এবারের বিশ্বকাপে বাবার না থাকা প্রত্যেক মুহূর্ত উপলব্ধি করছি। তাই মেসির কাছে আমার একান্ত অনুরোধ, এবার বিশ্বকাপ নিয়ে দেশে ফিরতেই হবে। তাহলেই বাবা সবচেয়ে বেশি আনন্দ পাবেন। মনে রেখ- উনি কিন্তু তোমাদের দেখছেন।’


Sangbad Sarabela

সম্পাদক: আবদুল মজিদ

প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । sangbadsarabela26@gmail.com, বিজ্ঞাপন: 01894-944204

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2022 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.