× প্রচ্ছদ জাতীয় সারাদেশ রাজনীতি বিশ্ব খেলা আজকের বিশেষ বাণিজ্য বিনোদন ভিডিও সকল বিভাগ
ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ

ঘোসনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি

২৩ এপ্রিল ২০২২, ১৩:০২ পিএম । আপডেটঃ ২৩ এপ্রিল ২০২২, ১৩:০৩ পিএম

কার্লোস ঘোসন।

বিশ্বখ্যাত নিশান গাড়ির সাবেক প্রধান নির্বাহী কার্লোস ঘোসনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে ফ্রান্স। দেশটির একজন ম্যাজিস্ট্রেট সন্দেহজনক লেনদেনের অভিযোগে ঘোসনসহ চারজনের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন। আর এ ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন ঘোসন। খবর বিবিসির

 বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফ্রান্সের একজন তদন্তকারী ম্যাজিস্ট্রেট পাঁচটি আন্তর্জাতিক গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন। ঘোসন ছাড়াও ওমানের একটি গাড়ি বিতরণকারী প্রতিষ্ঠানের চার কর্মকর্তার বিরুদ্ধে এ পরোয়ানা জারি করা হয়। ঘোসনের বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি সুহেল বাহল অটোমোবাইলসের মাধ্যমে রেনল্ট থেকে মিলিয়ন ইউরো বা ১০ লাখ ইউরোর বেশি অর্থ সরিয়েছেন। ওয়ালস্ট্রিট জার্নালে প্রকাশিত এ–সংক্রান্ত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, ঘোসন এ অর্থ ব্যক্তিগত ইয়ট কেনার ক্ষেত্রে ব্যবহার করেছেন।

বিবিসির প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, ২০১৯ সালে ঘোসন জাপান থেকে পালিয়ে যাওয়ার সময় আর্থিক অসদাচরণের অভিযোগের সম্মুখীন হয়েছিলেন। এর আগে ২০১৮ সালে তিনি আর্থিক অসদাচরণের অভিযোগে গ্রেপ্তার হন। যদিও সে সময় ঘোসন তাঁর বিরুদ্ধে উত্থাপিত সব অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন।

ঘোসনের পক্ষে নিযুক্ত আইনি প্রতিষ্ঠান কিং অ্যান্ড স্প্যাল্ডিংয়ের আইনজীবী জিন তামালেট বিবিসিকে বলেছেন, প্যারিসের শহরতলি নান্তেরে প্রসিকিউটর অফিস থেকে জারি করা গ্রেপ্তারি পরোয়ানাটি একটি তদন্তের অংশ মাত্র, যা বেশ কিছুদিন ধরে চলছিল। ওই আইনজীবী আরও বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি, এটি একটি প্রযুক্তিগত ব্যবস্থা মাত্র। আইনের মাধ্যমেই আমরা ভবিষ্যতে আদালতেই এর সমাধান করতে পারব।’

জাপান থেকে পালানোর পর থেকে ঘোসন বারবার বলে আসছিলেন, জাপান তাঁর বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অভিযোগ এনেছে। নিশান এবং রেনল্টের একীভূতকরণ থেকে দূরে সরিয়ে রাখতে তাঁর বিরুদ্ধে আর্থিক অনিয়মের নানা অভিযোগ তোলা হয়েছে বলে দাবি ঘোসনের।

ফ্রান্সে ঘোসনের বিরুদ্ধে বেশ কিছুদিন ধরে সন্দেহজনক আর্থিক লেনদেনের তদন্ত চলছিল গোপনে। তারই অংশ হিসেবে একজন তদন্তকারী কর্মকর্তা বৈরুতে ঘোসনকে দীর্ঘ জিজ্ঞাসাবাদও করেছেন।

এদিকে ঘোসনের লেবানন ত্যাগের ওপর নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। কারণ, যেকোনো সময় তাঁকে জাপানের কাছে হস্তান্তরের অনুরোধ আসতে পারে। যদিও ঘোসন মনে করেন, জাপানের এই ধরনের অনুরোধ মঞ্জুর হওয়ার সম্ভাবনা কম। তারপরও এ কথা নির্দ্বিধায় বলা যায়, বর্তমানে তিনি আইনি জটিলতার মধ্যে রয়েছেন।

Sangbad Sarabela

সম্পাদক: আবদুল মজিদ

প্রকাশক: কাজী আবু জাফর

যোগাযোগ: । 01894-944220 । sangbadsarabela26@gmail.com

ঠিকানা: বার্তা ও বাণিজ্যিক যোগাযোগ : বাড়ি নম্বর-২৩৪, খাইরুন্নেসা ম্যানশন, কাঁটাবন, নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ঢাকা-১২০৫।

আমাদের সঙ্গে থাকুন

© 2022 Sangbad Sarabela All Rights Reserved.